ফাইল ছবি

কলকাতাঃ  ফের বাংলায় শিক্ষক নিয়োগের সিদ্ধান্ত। ১৭ হাজার কম্পিউটার শিক্ষক নিয়োগের প্রস্তাব তৈরি হয়েছে। রাজ্যের বিভিন্ন স্কুলে এই শিক্ষক নিয়োগ করা হবে ঠিক করা হয়েছে। বাংলা এক সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত খবর মোতাবেক প্রতি স্কুলে একজন করে এই শিক্ষক দেওয়ার উদ্দেশ্যেই এই প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে।

আগামী ২০২১ সালে রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচন। আর সেই নির্বাচনের আগেই যাতে এই নিয়োগ সংক্রান্ত সমস্ত প্রক্রিয়া সেরে ফেলা যায় তা নিয়ে ইতিমধ্যে ভাবনা চিন্তা শুরু করা হয়েছে। উত্তর প্রাথমিকে কম্পিউটার শিক্ষা বাধ্যতামূলক করা হচ্ছে। তাই প্রচুর কম্পিউটার শিক্ষকও প্রয়োজন হবে। সেকথা মাথায় রেখেই সরকার এগোচ্ছে বলে খবর।

পড়ুন আরও- চালু হচ্ছে ফ্লিপকার্টের বৃহত্তম লজিস্টিক হাব, ১০ হাজারেও বেশি কর্মসংস্থানের সুযোগ

প্রকাশিত খবর মোতাবেক পাঁচ থেকে ছয় হাজার আইসিটি শিক্ষক রয়েছেন। তাঁদের সবাইকে এখন এর অধীনে আনা সম্ভব হচ্ছে। অনেকের গ্র্যাজুয়েশন না হওয়াতেই এই বিপত্তি। শুধু তাই নয়, অনেকের ছ’মাসের প্রশিক্ষণ রয়েছে। কিন্তু যাঁদের প্রয়োজনীয় যোগ্যতা রয়েছে, তাঁদেরকে এর অধীনে আনার চেষ্টা করা হবে বাংলা ওই সংবাদমাধ্যমের প্রকাশিত খবরে বলা হয়েছে। যদিও দীর্ঘদিন আইসিটি শিক্ষকরাই স্কুলের কম্পিউটার শিক্ষার ভার সামলেছেন। বেতন সহ একাধিক বিষয়ে সমস্যা রয়েছে তাঁদের।

পড়ুন আরও- তবে কি অতিরিক্ত ঘুমের ওষুধ খেয়েছেন নুসরত, ‘ড্রাগ ওভারডোজ’ নিয়ে রিপোর্ট থানায়

কিন্তু সেই সমস্যা কাটিয়েই পড়ুয়াদের কম্পিউটার শিখিয়েছেন তাঁরা। কিন্তু যোগ্যতা না থাকায় অনেককে নিয়েই তৈরি হয়েছে সমস্যা। তবে কম্পিউটার শিক্ষক নিয়োগের বিষয়ে মন্ত্রিসভার বৈঠকে ছাড়পত্র নেওয়া হবে। আর তা নেওয়া হলেই বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হবে বলে জানানো হয়েছে। কিন্তু তার আগেই এই আইসিটি শিক্ষকদের এর অধীনে আনার প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে হবে। নতুন কম্পিউটার শিক্ষকদের এসএসসির মাধ্যমে নিয়োগ করা হবে না।

কিন্তু কীভাবে তাঁদের নিয়োগ করা হবে, সে বিষয়ে এখনও বিস্তারিত কিছু জানা যায়নি। এই চাকরি স্থায়ী (চুক্তিভিত্তিক নয়) হলেও তাঁদের কনসলিডেটেড পে দেওয়া হবে বলে জানা গিয়েছে। এই খাতে কেন্দ্রীয় সরকারের স্কিল ডেভেলপমেন্ট-এর প্রকল্প থেকেও টাকা মিলতে পারে বলে আশা করছেন আধিকারিকদের একাংশ।