কলকাতা: পুজোর আগে বেতন বৃদ্ধির সুখবর দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। জানুয়ারি থেকে সরকারি কর্মীরা বর্ধিত বেতন পাবেন বলেও জানিয়েছেন। এখানেই শেষ নয়, সরকারি কর্মীদের জন এদিন মুখ্যমন্ত্রীর ঝুলিতে ছিল আরও সুখবর।

এদিন তিনি সরকারি কর্মীদের জন্য টানা ১৪ দিনের ছুটি ঘোষণা করেন। এবার পুজোয় সেই ছুটি উপহার পেতে চলেছেন সরকারি কর্মীরা। মমতা বলেন, আগে কোনও সরকার এভাবে ছুটি দেয়নি। সবারই একটা পরিবার আছে, একথা ভেবেই ছুটি বাড়িয়ে টানা ১৪ দিন করেছেন বলে জানান মমতা। তিনি বলেন, আমাদের সরকার সরকারি কর্মীদের জন্য এই ছুটি ঘোষণা করেছে কারণ, আমরা চাই সরকারি কর্মীরাও পরিবার নিয়ে ছুটি কাটিয়ে আসুন কোথা থেকে।

তিনি আরও উল্লেখ করেন, আগে চারদিন পুজোর ছুটি পেতেন সরকারি কর্মীরা। আর আমাদের সরকার ছুটি বাড়িয়ে টানা ১৪ দিন করে দিয়েছে এবার। বলেন, ”আমি হলপ করে বলতে পারি, আমাদের রা্জ্যের মতো ছুটি বা সুযোগ-সুবিধা কোথাও পাওয়া যায় না।”

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ঘোষণা অনুযায়ী, পুজোর ছুটি পাবেন ৩ অক্টোবর থেকে ১৫ অক্টোবর পর্যন্ত। তার আগে ২ অক্টোবর গান্ধী জয়ন্তী। তারপর দিন পঞ্চমীতে ছুটি দেওয়া হয়েছে এবার। আর পুজোর পরও দুদিন ছুটি দেওয়া হয়েছে। ১৩ অক্টোবর লক্ষ্মীপুজো। লক্ষ্মীপুজোর পর ১৪ ও ১৫ অক্টোবরও ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে।

এদিন নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়ামে তৃণমূলের রাজ্য সরকারি কর্মচারী সংগঠনের সভা ছিল। সেখানেই উপস্থিত ছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেখানে তিনি আরও জানান, জানুয়ারি মাস থেকেই এই বর্ধিত বেতন পাবেন কর্মীরা। এদিন সরকারি কর্মীদের সভায় মমতা জানান, ষষ্ঠ বেতন কমিশনের সব সুপারিশ মেনে নেওয়া হবে। রাজ্যের কর্মীদের ন্যূনতম বেসিক মাইনে বেড়ে হবে ১৭,৯৯০ টাকা। এছাড়া ৬ লক্ষ টাকা থেকে বেড়ে গ্র্যাচিউটি হল ১০ লক্ষ টাকা।

তিনি জানান, ডিএ এবং বেতন কমিশন, আগে ১০০ টাকা বেসিক পে থাকলে ডিএ যুক্ত হলে আপনি কর্মীরা পেতেন ১২৫ টাকা। এরপর ডিএ ও পে কমিশন মার্জার হলে তখন এটা হবে ২৫৭। অর্থাত্ ১২৫ থেকে ২৫৭, এই হারেই বৃদ্ধি পাবে বেতন। ন্যূনতম বেসিক পে ৭০০০টাকা ছিল, সেটা বাড়িয়ে করা হয়েছে ১৭,৯৯০। সুপারিশ মানতে গেলে ১০ হাজার কোটি টাকার বেশি খরচ হবে বলেও জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।