কলকাতা: কেন্দ্রের আর্থিক বঞ্চনা কথা রাজ্য সফররত পঞ্চদশ অর্থ কমিশনের কাছে তুলে ধরলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কোথায় কোথায় কেন্দ্রীয় বরাদ্দ কমেছে, তার হিসেব দিয়েছেন তিনি৷ মঙ্গলবার অর্থ কমিশনের সদস্যদের সামনে কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে অভিযোগ জানিয়ে মুখ্যমন্ত্রী ব্যাখ্যা করেছেন রাজ্যের কোষাগারের উপর কেন চাপ বাড়ছে। পাশাপাশি রাজ্যের উপর চেপে বসা ক্রমবর্ধমান ঋণের বোঝা কমানোর জন্যও আর্জি জানান তিনি।

ঋণের বোঝার বিষয়ে কমিশনের চেয়ারম্যান এন কে সিংহ সহানুভূতির সঙ্গে বিবেচনা করার আশ্বাস দিয়েছেন৷ এব্যাপারে তাদের প্রস্তাব রাষ্ট্রপতির কাছে পেশ করা হবে বলে ইঙ্গিত মিলেছে। প্রসঙ্গত, বাম সরকারের আমলে নেওয়া ঋণের সুদ এবং আসল মেটাতে গিয়ে মমতা সরকারকে রীতিমতো হিমশিম থেকে হচ্ছে। চলতি আর্থিক বছরে মেটাতে হচ্ছে ৪৬ হাজার কোটি টাকা।

ক্রীড়া সংসদের পদে মন্ত্রীর ছেলে! বাড়ছে বিতর্ক

পাশাপাশি কমিশন ইঙ্গিত দিয়েছে, বেশ কিছু আর্থিক সূচক নির্ধারণের ক্ষেত্রে কেন্দ্র ও রাজ্যের মতানৈক্য দ্রুত মিটিয়ে ফেলতে আগ্রহী তারা৷ এবার কমিশন ঐকমত্যের কথা বলায় তা করার জন্য সক্রিয় হচ্ছে অর্থ দফতর।প্রসঙ্গত এই সূচকগুলি একরকম না হলে রাজ্যের প্রকৃত আর্থিক অবস্থা যাচাই করা সম্ভব হচ্ছে না বলে জানান কমিশনের কর্তারা৷

মঙ্গলবার সাড়ে ১২টা থেকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও অর্থমন্ত্রী অমিত মিত্র অর্থ কমিশনের সদস্যদের সঙ্গে বৈঠকে করেন । তখন কমিশনের চেয়ারম্যানের হাতে ১২ পাতার একটি স্মারকলিপি তুলে দেন মুখ্যমন্ত্রী। ওই স্মারকলিপিতে রাজ্যের সাফল্যের দিকটা তুলে ধরার পাশাপাশি কেন্দ্রীয় বঞ্চনা সংক্রান্ত তথ্যও দেওয়া রয়েছে৷