কলকাতা: ভারত সফরে এসে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের উচ্চারণের ভুলেও কেন্দ্রের বিজেপি শাসিত সরকারকেই কাঠগড়ায় তুললেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ‘এটা ট্রাম্পের নয়, আমাদেরই ভুল, বিবেকানন্দের গুরুত্ব তাঁকে বোঝাতেই পারেনি কেন্দ্রীয় সরকার।’ বিজেপির জন্য দেশের সম্মান নষ্ট হচ্ছে বলেও সোমবার নেতাজি ইন্ডোরে দলের সভা থেকে মন্তব্য করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

ট্রাম্পের ভারতীয় মণিষীদের নামের উচ্চারণ নিয়ে রসিকতা ইতিমধ্যেই নেট দুনিয়ায় ভাইরাল হয়েছে। রাজনৈতিক ব্যক্তি থেকে শুরু করে দেশের বিশিষ্টজনেরাও ট্রাম্পের উচ্চারণ নিয়ে রসিকতা করেছেন। এবার সেই তালিকায় নবতম সংযোজন তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তবে ভুল উচ্চারণের জন্য ট্রাম্পকে নয়, বরং কেন্দ্রকেই দায়ী করেছেন তৃণমূলনেত্রী।

দু’দিনের ভারত সফরে এসে আহমেদাবাদে ভারতীয় মণীষীদের নিয়ে বক্তব্য রেখেছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। গুজরাতের মোতেরা স্টেডিয়ামে সেই বক্তৃতায় মহান ভারতীয়দের শ্রদ্ধা জানাতে গিয়ে স্বামী বিবেকানন্দকে ‘বিবেকামুনডন’ বলে সম্বোধন করেছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট।

সচিন তেন্ডুলকরের নাম বলতে গিয়েও বড়সড় গোলোযোগ বাঁধান ট্রাম্প। বিশ্ব তথা ভারতীয় ক্রিকেটের কিংবদন্তীকে ‘শুচিন’ বলেছিলেন ট্রাম্প। ট্রাম্পের এই বক্তব্য নিয়ে সোশ্ল মিডিয়ায় মুহূর্তে ছড়িয়ে পড়ে রসিকতা। একের পর এক কমেন্ট লেখা শুরু হয়।

ওয়াকিবহাল মহলের মতে, রাষ্ট্রপ্রধান হিসেবে অন্য একটি দেশে এসে সে দেশের মণীষীদের নামের উচ্চারণ নিয়ে ট্রাম্পের আগে থেকেই প্রস্তুতি নেওয়া উচিত ছিল। এদিকে, ট্রাম্পের ভারতীয় মণীষীদের নামের উচ্চারণে হোঁচট খাওয়ার ঘটনায় উল্টে কেন্দ্রকেই দায়ী করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

এই প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘এদের জন্য দেশের সম্মান তলিয়ে যাচ্ছে। বিবেকানন্দের নাম ভুল বলা হচ্ছে। তবে আমি ট্রাম্পকে দোষ দিই না। এটা আমাদেরই দোষ। আমরাই তো ভালো করে বোঝাতে পারিনি। বিবেকানন্দের উচ্চারণ শেখাতে পারিনি। বিবেকানন্দের গুরুত্ব বোঝাতে পারিনি। তাই গান্ধীজিকেও ভুলে যাচ্ছে।’