শিলিগুড়ি: পাহাড়ে নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর জন্মদিন পালনের অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে বিজেপিকে তুলোধনা করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আবারও কেন্দ্রের শাসকদলের বিরুদ্ধে বিভাজনের রাজনীতির অভিযোগ তুললেন তৃণমূলনেত্রী। একইসঙ্গে নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর জন্মদিনকে জাতীয় ছুটি হিসেবে ঘোষণারও দাবি জানালেন মুখ্যমন্ত্রী।

সিএএ ও এনআরসি বিরোধিতায় বুধবার পাহাড়ে মিছিল করার পর বৃহস্পতিবার নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর জন্মদিনের অনুষ্ঠানে যোগ দেন মুখ্যমন্ত্রী। অনুষ্ঠান মঞ্চে বক্তব্য রাখতে গিয়ে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন ইস্যুতে কেন্দ্রের শাসকদল বিজেপির কড়া সমালোচনা করেন মুখ্যমন্ত্রী। ধর্মের নামে বিজেপি বিভাজনের রাজনাতি করছে বলে এদিন তোপ দাগেন মুখ্যমন্ত্রী। বিজেপিকে দুষে মমতা বলেন, ‘হিন্দু ধর্মের বদনাম করছে বিজেপি৷ নেতাজি একজোট হয়ে লড়াইয়ের বার্তা দিয়েছিলেন৷ এখন ধর্মের নামে মানুষের রক্ত নেওয়া হচ্ছে। সব ধর্মাবলম্বীদের বের করে দেওয়ার চেষ্টা হচ্ছে। যিনি দেশকে নেতৃত্ব দিতে পারেন তিনিই নেতা।’

এরই পাশাপাশি নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর জন্মদিনকে জাতীয় ছুটি হিসেবে ঘোষণারও দাবি তুলেছেন মুখ্যমন্ত্রী। এই প্রসঙ্গে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘বহু দিন থেকে নেতাজির জন্মদিনকে জাতীয় ছুটি হিসেবে ঘোষণার দাবি জানিয়েছি৷ কোনও সরকারই সেব্যাপারে প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নেয়নি। কেন্দ্রে ক্ষমতায় এসে নেতাজি সম্পর্কিত একাধিক ফাইল প্রকাশ্যে আনে মোদী সরকার। কিন্তু নেতাজির জন্মদিনকে আজও জাতীয় ছুটি হিসেবে ঘোষণা করা হল না।’

নাগরিকত্ব আইন নিয়ে শুরু থেকেই সুর চড়াচ্ছেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। নাগরিকত্ব আইন বাতিলের দাবি জানিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এমনকী নাগরিকত্ব আইনের বিরুদ্ধে রাজ্য বিধানসভায় প্রস্তাব পাশ করানো হবে বলেও জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কোনওভাবেই নাগরিকত্ব আইন ও এনআরসি এরাজ্যে কার্যকর করা হবে না বলেও জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। এমনকী এনপিআর-এর কাজও বন্ধ রেখেছেন মুখ্যমন্ত্রী।

সিএএ-র প্রতিবাদে রাজ্যজুড়ে প্রতিবাদ কর্মসূচি নিয়েছে তৃণমূল। সেই কর্মসূচি পালনেই বুধবার পাহাড়ে মিছিল করেন তৃণমূলনেত্রী। দার্জিলিঙের ভানু ভক্ত ভবন থেকে চকবাজার পর্যন্ত সিএএ-এনআরসি বিরোধী মিছিল করেন মমতা। মিছিলে পা মেলান পাহাড়ের গোর্খা, লেপচা-সহ পাহাড়ের একাধিক জনগোষ্ঠী। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দাবি, নাগরিকত্ব আইনের জেরে বহু গোর্খা সম্প্রদায়ের মানুষের নাম বাদ গিয়েছে। বুধবার পাহাড়ে মিছিল করে কেন্দ্রীয় আইনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদের পর বৃহস্পতিবার নেতাজির জন্মদিন পালনের অনুষ্ঠানেও সিএএ ও এনআরসি ইস্যুতে কেন্দ্রকে কাঠগড়ায় তুললেন মমতা।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ