স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: বাংলার জন্য সুখবর। বিধানসভা নির্বাচনের আগে রাজ্যে কর্মসংস্থানের দিশা দেখালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

পড়ুন আরও- গরু পাচার রুখতে রাজ্যজুড়ে সিবিআই অভিযান, সিল হল বিএসএফ কর্নেলের বাড়ি

বুধবার নবান্নে তিনি জানালেন, বানতলা, দিঘা, মেদিনীপুরের মতো একাধিক জায়গায় বিনিয়োগ হচ্ছে। করোনা পরিস্থিতিতে অনেকে চাকরি হারিয়েছেন। যুব সমাজের দুশ্চিন্তার কারণ হয়ে উঠেছে কর্মসংস্থান। এই পরিস্থিতিতে যুব সমাজকে আশ্বস্ত করলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

বললেন, বাংলায় লক্ষ লক্ষ কর্মসংস্থান হবে। সেই পরিকল্পনা করে ফেলেছে তার সরকার। তাই চাকরি নিয়ে কোনও দুশ্চিন্তা করার দরকার নেই।

পড়ুন আরও- উত্তর গোলার্ধে ৫৬০ কিমি বেগে প্রবল ঝড়, বৃহস্পতির নতুন ছবিতে সামনে আসছে তথ্য

এদিন মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “বানতলায় চর্মশিল্পে কমপক্ষে পাঁচ লক্ষ কর্মসংস্থান হবে। জার্মানের বিনিয়োগের মেদিনীপুরে সৌরবিদ্যুৎ প্রকল্প হচ্ছে। তাতেও প্রচুর মানুষ কাজের সুযোগ পাবেন। দিঘাতেও নতুন শিল্পে কাজ পাবেন বহু বেকার যুবক-যুবতী। আমাদের এখানে জঙ্গল, সমুদ্র, পাহাড় সবই রয়েছে। সেক্ষেত্রে পর্যটন ব্যবসারও উন্নতি করা সম্ভব।”

তিনি এদিন বলেন, ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পে এগিয়ে রয়েছে বাংলা। পর্যটন শিল্পে জোর দেওয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন তিনি। এর আগেও দিঘায় কেবল ল্যান্ডিং স্টেশন তৈরি হচ্ছে বলে জানিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। ওই কেবল ল্যান্ডিং স্টেশনে প্রায় ১ হাজার কোটি টাকা রিলায়েন্স জিও লগ্নি করছে বলেও জানিয়েছিলেন তিনি। এবারও সেকথা উল্লেখ করেন মুখ্যমন্ত্রী।

বিনিয়োগকারীদের আহ্বান করে এদিন মুখ্যমন্ত্রী বলেন,’বাংলায় বিনিয়োগ করুন৷’ কদিন আগে ভার্চুয়াল সভা থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এক পরিসংখ্যান তুলে ধরে জানিয়েছেন, দেশে বেকারত্ব বেড়েছে ৪২ শতাংশ। সেখানে বাংলায় বেকারত্ব কমেছে ৪০ শতাংশ।

এই পরিসংখ্যানই দেখিয়ে দিয়েছে, আমরা কাজ করি। আমরা কাজ করাই। বাংলার মানুষ যে বিভিন্ন প্রকল্পের কাজে নিযুক্ত রয়েছেন, এটা তারই প্রমাণ। ইতিমধ্যেই রাজ্যে ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোগের শিল্পের জন্য (এমএসএমই) নতুন ১০০টি পার্ক তৈরির অনুমোদন দিয়েছে সরকার।

পচামড়াজাত পণ্যের ফ্যাশনের দুনিয়ায় উজ্জ্বল তাঁর নাম, মুখোমুখি দশভূজা তাসলিমা মিজি।