স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: নিজের অধীনে থাকা দফতরগুলির কার্যকলাপ নিয়ে এবার বিধানসভায় প্রশ্নের উত্তর দেবেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ সূত্রের খবর, রাজ্যের স্বাস্থ্য পরিষেবা নিয়ে বিধানসভার সদস্যদের প্রশ্নের জবাব দিতে মমতা যে আগ্রহী, তা পরিষদীয় মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় ও সরকারি মুখ্য সচেতক নির্মল ঘোষকে জানানো হয়েছে।

বিধানসভায় মুখ্যমন্ত্রীর জন্য প্রশ্নের জবাব দেওয়ার নির্ধারিত দিন শুক্রবার। গত ছ’বছরে তাঁর অধীনে থাকা দফতরগুলির কার্যকলাপ নিয়ে বিধানসভায় একের পর এক প্রশ্ন করেও জবাব পাননি বিরোধীরা। হাতে গোনা দু-তিন দিন বিধানসভায় প্রশ্নোত্তর পর্বে মুখ খুলেছেন মুখ্যমন্ত্রী৷ কিন্তু এ বার বিধানসভায় প্রশ্নের জবাব দিতে নিজে থেকেই আগ্রহ প্রকাশ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। এক শ্রেণির বেসরকারি হাসপাতালের বিরুদ্ধে মানুষের অসন্তোষ, অভিযোগকে সামনে রেখে তাদের বিরুদ্ধে সম্প্রতি কঠোর ব্যবস্থা নিতে শুরু করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। তৃণমূল সূত্রে জানা গিয়েছে, স্বাস্থ্য পরিষেবার ক্ষেত্রে সরকার কী কী পদক্ষেপ করছে, সেই বার্তা দিতেই বিধানসভায় মুখ্যমন্ত্রী এ ব্যাপারে চলতি সপ্তাহের শুক্রবার প্রশ্নের জবাব দিতে চাইছেন।ইতিমধ্যেই তাঁর সামনে রাজ্যের স্বাস্থ্য পরিষেবা সংক্রান্ত প্রশ্ন তুলে ধরার প্রস্তুতি শুরু হয়ে গিয়েছে শাসক দলের মধ্যে।

যদিও বিরোধীদের আশঙ্কা, আসলে পুরো ব্যাপারটাই সাজানো হচ্ছে রাজনৈতিক উদ্দেশ্য নিয়ে। স্বাস্থ্য পরিষেবা নিয়ে বেছে বেছে শাসক দলের বিধায়কদের প্রশ্নের জবাব দেবেন মুখ্যমন্ত্রী। সে ক্ষেত্রে তৃণমূলের কোনও বিধায়কই অপ্রিয় প্রশ্ন করবেন না।

সিপিএমের পরিষদীয় দলনেতা সুজন চক্রবর্তী বলেন, মুখ্যমন্ত্রী কোনসময়ই বিরোধীদের কোনও প্রশ্নের উত্তর দেননা৷এবার কী করবেন সেটা একমাত্র উনিই জানেন৷ আমাদের অনেক প্রশ্ন রয়েছে ওনার অধীনস্ত দফতর নিয়ে৷ আমার নিজেরই ২০টা প্রশ্ন আছে৷যদিও এবারও বিরোধীদের এড়িয়ে শুধু নিজের দলের বিধায়কদের প্রশ্নের উত্তর দেন তাহলে আমরাও পরবর্তী পদক্ষেপের কথা ভাবব৷

বিরোধী দলনেতা আব্দুল মান্নান বলেন, বিধানসভা নিয়ে ছেলেখেলা করছেন মুখ্যমন্ত্রী৷ আমরা উন্মাদের রাজ্যে বাস করছি৷

বিধানসভা সূত্রের খবর, স্বাস্থ্য পরিষেবার পাশাপাশি, ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প এবং সংখ্যালঘু উন্নয়ন সংক্রান্ত প্রশ্নের জবাবও দিতে পারেন মুখ্যমন্ত্রী। কারণ, ওই দু’টি দফতরের কাজেও সাফল্য রয়েছে সরকারের।

#As per our sources, West Bengal Cheif Minister Mamata Banerjee would now answer all queries and questions pertaining to her own departments in the West Bengal Legislative Assembly.