কলকাতা: মোদী সরকারের নয়া সিদ্ধান্তে ক্ষুব্ধ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। শুক্রবার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের নতুন নির্দেশিকা প্রকাশ্যে আসতেই ট্যুইট করলেন তিনি। এই সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ জানিয়েছেন মমতা।

কেন, সাধারণ মানুষকে সরকারি নজরদারির কোপে পড়তে হবে, সেই প্রশ্নই তুলেছেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি লিখেছেন, ”এটা যদি জাতীয় নিরাপত্তার জন্য করা হয়ে থাকে, তবে কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে যথেষ্ট ব্যবস্থা ইতিমধ্যেই রয়েছে। কিন্তু সাধারণ মানুষকে এর জন্য কেন ফল ভোগ করতে হবে? আপনাদের কি মত?” কেন্দ্রের এই সিদ্ধান্তকে ‘ডেঞ্জারাস’ বলে উল্লেখ করেছেন তিনি। নির্দেশিকার একটি ছবি দিয়ে লিখেছেন, Isn’t this dangerous?

সম্প্রতি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের তরফ থেকে একটি নির্দেশিকায় বলা হয়েছে, ১০টি কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা এবার থেকে কম্পিউটারে গৃহীত হওয়া, স্টোর থাকা বা জেনারেট হওয়া যে কোনও তথ্য মনিটর করতে পারবে। যেসব সংস্থাকে এই অধিকার দেওয়া হয়েছে সেগুলি হল, Intelligence Bureau), Narcotics Control Bureau, Enforcement Directorate, Central Board of Direct Taxes, Directorate of Revenue Intelligence, CBI, National Investigation Agency, Cabinet Secretariat (R&AW), Directorate of Signal Intelligence (in Jammu and Kashmir, North-East and Assam only) এবং Delhi Police Commissioner.

এই সিদ্ধান্তেই ক্ষুব্ধ বিরোধীরা। কংগ্রেসও এই বিষয়টাকে মোটেই ভাল চোখে দেখছে না। আগামিদিনে এই নির্দেশিকার অপব্যবহার হতে পারে বলে মনে করছে কংগ্রেস।

এই প্রথমবার কম্পিউটারে থাকা যে কোনও ডেটা স্ক্যান করার অধিকার দেওয়া হল সংস্থাগুলিকে। এর আগে ফোন কল ট্যাপ করা যেত বা ইমেল চেক করতে পারতেন গোয়েন্দারা। কিন্তু এবার যে কোনও তথ্য চাইলে দেখতে পারবেন গোয়েন্দারা। প্রয়োজনে তাঁরা কম্পিউটার সিজ করতেও পারবেন সহজে।

এই প্রসঙ্গে সীতারাম ইয়েচুরি ট্যুইট করেছেন, ”কেন প্রত্যেক ভারতীয়কে অপরাধী বলে গণ্য করা হচ্ছে? সরকারের এই অর্ডার প্রত্যেক ভারতীয়ের উপর নজর রাখতে পারবে। এটা অসাংবিধানিক।”