স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: সংঘ পরিবার যেভাবে বিজেপির সঙ্গে মিলে খুন খারাপির রাজনীতি করছে, তাতে ওদের সম্পর্কে আমার ধারণাই বদলে যাচ্ছে৷ মঙ্গলবার দিল্লি যাওয়ার আগে নবান্নে একথা জানান মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ শুধু তাই নয়, তাঁর আরও দাবি, বিনাশকালে বুদ্ধিনাশ ঘটেছে বিজেপির৷ তাই এসব করছে৷

এদিন এলাহাবাদে কেন্দ্রীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্র ইউনিয়নের অনুষ্ঠানে যেতে বাধা দেওয়া হয় সমাজবাদী পার্টির প্রধান অখিলেশ যাদবকে৷ লখনউ থেকে বিমান ধরতে যাওয়ার সময়ই তাঁকে চৌধুরী চরণ সিংহ বিমানবন্দরে আটকে দেওয়া হয়, যাতে তিনি যেতে না পারেন বলেই অভিযোগ করেছেন অখিলেশ৷ ঘটনার প্রতিবাদে এদিন সপা কর্মীরা রাজভবন ঘেরাও করে৷ সেই ঘটনার প্রতিবাদে কলকাতায় গর্জে ওঠেন তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী মমতা৷

সমাজবাদী পার্টির পাশে থেকে বিজেপিকে নিশানা করে মমতা জানান, এরকম ভয়ঙ্কর দুরবস্থা আমরা কখনও দেখিনি৷ যিনি নিজে সারাক্ষণ গণতন্ত্র নিয়ে জ্ঞান দেন, আর তাদের নিজেদের রাজ্যগুলিতে গণতান্ত্রিক পদ্ধতি মেনে কোনও অনুষ্ঠান চলতে বাধা দেয়৷ অথচ, ওরা বাংলায় সোয়াইন ফ্লু নিয়েও প্রোগ্রাম করে গেছে তখন আমরা অনুমতি দিয়েছি৷ কিন্তু ওদের বিরুদ্ধে মুখ খুললেই বিপদ৷ সে পুলিশও যদি তদন্ত করে সেও খুন হয়ে যায়৷

এদিন দিল্লি যাওয়ার আগে শুধু নবান্নেই নয়, কলকাতা বিমানবন্দরেও সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন মুখ্যমন্ত্রী৷ সেই বক্তব্যেও বিজেপিকে আক্রমণ করেন মমতা৷ বিজেপি এজেন্সির অপব্যবহার করছে বলে এদিন আরও একবার বিজেপিকে নিশানা করেন মুখ্যমন্ত্রী৷ শুধু তাই নয়, নাগরিকত্ব বিল নিয়েও সরব হন তিনি৷ মুখ্যমন্ত্রীর প্রশ্ন, দ্বিতীয়বার কেন নাগরিকত্ব প্রমাণ দিতে হবে? নাগরিকত্ব বিলের নামে তো দেশবাসীকে অপমান করছে বিজেপি৷

এদিন বিকেল ৫টার বিমানে দিল্লি রওনা দেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ দিল্লিতে লোকসভা ভোটের আগে গণতন্ত্র রক্ষায় ও মোদী বিরোধী মহাজোটে শান দিতেই মূলত তাঁর দিল্লি রওনা হওয়া৷ ইতিমধ্যেই দিল্লিতে গিয়ে অন্ধ্রপ্রদেশের জন্য বিশেষ মর্যাদা চেয়ে ধরনায় বসেছেন সেই রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী চন্দ্রবাবু নাইডু৷ সেখানে মোদী বিরোধী ধরনা মঞ্চে যোগ দেবেন তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী তথা বাংলার মুখ্যমন্ত্রী৷ সূত্রের খবর, কংগ্রেস সহ সমস্ত বিরোধী দলগুলিই চন্দ্রবাবুর এই ধরনায় যোগ দেবে৷