কলকাতা: পুলওয়ামায় জঙ্গি হামলার পর কেটে গিয়েছে এক বছর। বর্বরোচিত ওই হামলায় শহিদ হন ভারতের ৪৪ সেনা-জওয়ান। হামলার এক বছরের মাথায় এসে তাঁদের স্মরণ করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ফেসবুকে নিহত জওয়ানদের স্মরণে তিনি লেখেন, ‘জওয়ানদের আত্মত্যাগ সব সময় মনে থাকবে। তাঁরা সব সময় আমাদের মনেই থাকবেন।’

২০১৯ সালের ১৪ ফেব্রুয়ারি জম্মু-কাশ্মীরের রাজধানী শ্রীনগর থেকে প্রায় ২০ কিলোমিটার দূরে পুলওয়ামায় সেনা কনভয়ে হামলা চালায় জঙ্গিরা। সিআরপিএফের প্রায় ৭৮টি গাড়ি লক্ষ্য করে এই হামলা চালানো হয়। হামলায় বেশ কয়েকজন আহত হন। শেষ পর্যন্ত মৃত্যু হয় ৪৪ সেনা-জওয়ানের। আত্মঘাতী এক জঙ্গি গাড়ি নিয়ে এসে ঢুকে পড়ে সেনা-কনভয়ে। কনভয়ে ঢোকার পরই গাড়িতে আগে থেকে মজুত থাকা বিপুল পরিমাণ বিস্ফোরকে ঘটে যায় বিস্ফোরণ। প্রবল বিস্ফোরণে কেঁপে ওঠে গোটা এলাকা। উড়ে গিয়ে পড়ে সেনার গাড়ি। ছিন্নভিন্ন হয়ে যায় সেনা-জওয়ানদের শরীর।

পুলওয়ামার ঘটনায় গোটা দেশ প্রতিবাদে গর্জে ওঠে। কাপুরুষোচিত ওই হামলায় পাকিস্তানের মদত দেওয়ার অভিযোগ উঠেছিল। পাক মদতপুষ্ট জঙ্গি গোষ্ঠী জইশ-এ মহম্মদ-এর যোগ ছিল ওই হামলায়। যদিও মদত দেওয়ার কথা কখনই স্বীকার করেনি ইসলামাবাদ। পুলওয়ামার ঘটনার পর বহির্বিশ্বে পাকিস্তানকে একঘরে করতে উঠেপড়ে লাগে ভারত। রীতিমতো হামলার একাধিক পাক মদতের প্রমাণ রাষ্ট্রসংঘের হাতে তুলে দেওয়া হয়। গোটা বিশ্বকে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসবাদ ইস্যুতে একজোট হতে আবেদন করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। যদিও ভারতের অভিযোগ বারবারই অস্বীকার করে উলটে দিল্লিকেই কাঠগড়ায় তুলে এসেছে পাকিস্তান।

পুলওয়ামায় জঙ্গি হামলায় ৪৪ সেনা-জওয়ান শহিদ হয়েছিলেন। শুক্রবার তাঁদেরই স্মরণ করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ফেসবুকে তিনি লেখেন, ‘তোমাদের আত্মত্যাগ মনে থাকবে। তাঁরা সব সময়ই আমাদের হৃদয়ে থাকবেন। কোনও হিংসাই বরদাস্ত করা যায় না। এই ইস্যুতে আমাদের প্রত্যেককেই আওয়াজ তুলতে হবে।’