নিউজ ডেস্ক, কলকাতা: একদিকে আটকে গিয়েছে নরেন্দ্র মোদীর বায়পিকের মুক্তি। ১৯ মে’র আগে মোদীর বায়পপিক মুক্তি পাবে না বলে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে। অন্যদিকে, ‘বাঘিনী’ ছবি নিয়ে কমিশনের দ্বারস্থ হয়েছে বিজেপি। কারণ ওই ছবিতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের জীবন বর্ণনা করা হয়েছে বলে অভিযোগ।

বেশ কিছুদিন ধরেই এই ‘বাঘিনী’ ছবি নিয়ে জলঘোলা হচ্ছে। বিশেষত ভোটের ঠিক মুখে ওই ছবির ট্রেলার প্রকাশ্যে আসায় বিতর্ক বাড়ে। তবে এবার খোদ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সেই অভিযোগ খারিজ করে দিলেন। ট্যুইট করে ওই ছবির সঙ্গে যোগ থাকার কথা অস্বীকার করলেন তিনি।

ট্যুইটে তিনি ওই ছবি প্রসঙ্গে লেখেন, এই বিষয়ে মিথ্যা ছড়ানো হচ্ছে। তিনি বলেন, ‘কোনও বায়োপিকের সঙ্গে আমার সম্পর্ক নেই। কউ যদি গল্প সংগ্রহ করে তা দিয়ে ছবি বানায়, তাহলে সেটা তাদের ব্যাপার। এর সঙ্গে আমার কোনও যোগ নেই। আমি নরেন্দ্র মোদী নিয়ে।’ তাঁর নামে মিথ্যা প্রচার চালানো হচ্ছে বলেই অভিযোগ করেন তিনি।

কিছুদিন আগেই রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর জীবন নিয়ে তৈরি ছবির বিরুদ্ধে কমিশনের দ্বারস্থ হয়েছে সিপিএম। চিঠি লিখেছে বিজেপি। ‘বাঘিনী- বেঙ্গল টাইগ্রেস’ নামে ছবিটির ট্রেলার বেরিয়েছে ইতিমধ্যেই। আগামী ৩ মে অর্থাৎ লোকসভা ভোটের মাঝেই সেই ছবি মুক্তি পাওয়ার কথা।

নির্বাচন কমিশনে রাজ্য বিজেপির লেখা চিঠিতে বলা হয়েছে, ‘মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বায়োপিক মুক্তি পাবে আগামী ৩ মে। সেই খবরেই নির্বাচন কমিশনের দৃষ্টি আকর্ষণ করা হচ্ছে। বায়োপিক মুক্তি পাওয়ার আগে যাতে নির্বাচন কমিশন সেটি খতিবে দেখে, সেই আর্জি জানানো হচ্ছে বিজেপির তরফ থেকে।’

১১ এপ্রিলের আগে মোদীর বায়োপিক মুক্তি পাওয়ার কথা ছিল। বিরোধীদের অভিযোগের পর সেই মুক্তি আটকে গিয়েছে। মামলা গিয়েছে সুপ্রিম কোর্টেও। অন্ধ্রপ্রদেশের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী এনটি রামা রাওয়ের বায়োপিক ‘লক্ষী এনটিআর’ এবং তেলেঙ্গানার মুখ্যমন্ত্রী কে চন্দ্রশেখর রাওয়ের ‘উদয়মা সিমহাম’ ছবির মুক্তিও আটকে দেওয়া হয়েছে।

লোকসভা ভোটের মাঝেই এই বায়োপিক আসলে নির্বাচন আচরণবিধি ভঙ্গ করছে এই অভিযোগ তুলে আগেই নির্বাচন কমিশনের দ্বারস্থ হয়েছেন সিপিএমের সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরি৷

ছবির গল্প স্ক্রিপ্ট লিখেছেন পিঙ্কি পাল৷ প্রযোজনাও করছেন তিনি নিজে৷ যদিও পরিচালক নেহাল ছবিটিকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের জীবন নিয়ে তৈরি বলতে রাজি নন, কিন্তু টিজার যেন এই বিষয়কেই বেশি করে সামনে এনে দিচ্ছে৷ পরিচালক না মানলেও বছর তিনেক আগে এই ছবির পোস্টার লঞ্চের সময় ছবির প্রধান চরিত্র রুমা চক্রবর্তী অবশ্য বলেছিলেন , “এই ছবি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের জীবনের আদলে তৈরি হয়েছে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের চরিত্রে অভিনয় করতে পেরে আমার নিজের গর্ববোধ হচ্ছে।”

ট্রেলারের ১৪ থেকে ২০ সেকেন্ডে দেখা যাচ্ছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আদলে তৈরি হওয়া চরিত্র ইন্দিরা তার এক পরিচিত যুবককে বলছে , “তুমি বিয়ের কথা বলছো তো, কিন্তু আমার জীবনের লক্ষ্যটা যে মানুষের জন্য কিছু করা৷” এছাড়াও বিরোধী নেত্রী হিসেবে মার খেতে খেতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিখ্যাত উক্তি, বিধানসভায় একদিন মাথা উঁচু করে ঢুকবও দেখানো হয়েছে এই ট্রেলারে৷ স্বাভাবিকভাবেই প্রশ্ন উঠছে নেহাল যাই বলুন না কেন, মুখ্যমন্ত্রীর জীবনের আদলে তৈরি হয়েছে ‘বাঘিনী’৷