স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: ইভিএম নয়, ফেরাতে হবে ব্যালট। সরব বিরোধীপক্ষ। আর সেই আন্দোলনেই নেতৃত্ব দিতে তৈরি তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বুধবার রাজ ঠাকরের সঙ্গে ব্যালট ফেরানোর দাবিতে বৈঠক করেন মমতা। সেখানেই আন্দোলনের রূপরেখা নিয়ে কথা হয়। সেই বৈঠকেই তৃণমূল নেত্রীর আশ্বাস, ‘ম্যায় হুঁ, সমঝ লেনা।’

বুধবার নবান্নে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে দেখা করেন মহারাষ্ট্র নবনির্মাণ সেনার প্রধান রাজ ঠাকরে। গণতন্ত্র বাঁচাতে প্রয়োজন ব্যালট ফেরিয়ে আনা। দাবি তুলেছেন এই মরাঠা নেতা। সেই দাবিকে সমর্থন জানিয়ে পাশে থাকার আশ্বাস দিয়েছেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী তথা শাসক দলের প্রধান মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

এদিন বেশ কিছুক্ষণ রাজ-মমতা বৈঠক হয়। সেখানেই উঠে আসে নির্বাচনী স্বচ্ছতা বজায় রাখতে ইভিএমের বদলে ব্যালট ফেরানোর বিষয়টি। মহারাষ্ট্র নবনির্মাণ সেনা ২১ আগস্ট মুম্বইতে এই দাবিতে ব়্যালি করবে। যেখানে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে বাংলার মুখ্যমন্ত্রীকে। যিনি নিজেই এই দাবিতে সরব। বৈঠকে রাজ ঠাকরেকে তৃণমূল নেত্রী বলেন, ‘তৃণমূল কংগ্রেস গণতন্ত্র বাঁচাতে বদ্ধপরিকর। উনি আশ্বাস দিয়েছেন এই ইস্যুতে আন্দোলনে। বলেছেন, ম্যাঁ হু, অ্যায়সা সমঝ লেনা’। দাবি মারাঠা নেতা রাজের।

ব্যালটে ভোটের দাবি জানিয়েছে কংগ্রেস, তৃণমূল সহ বেশিরভাগ বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলি। ভোটের আগে ২৩ বিরোধী দল এই দাবিতে কমিশনেরও দ্বারস্থ হয়। যাতে অংশ নিয়েছিল মহারাষ্ট্র নবনির্মাণ সেনাও। জানা গিয়েছে এদিনের বৈঠকে তৃণমূল নেত্রী জানিয়েছেন, ব্যালটে ভোট ওরাও চাইছে। ওরা-ও গনতন্ত্র বাঁচানোর চেষ্টা করছে। একটা মোর্চাও তৈরি করছে।

প্রসঙ্গত, ভোট বিপর্যয়ের পর এবার ২১শে জুলাইয়ের সভার মূল স্লোগান ছিল ব্যালটে ভোট করতে হবে। ভোটের আগে মোদী-শাহ জুটির হুঙ্কার ছিল লোকসভায় বিজেপি ৩০০ আসন একাই পাবে। যা পরে মিলে যায়। বিজেপি নেতৃত্বের এই ভবিষ্যৎদ্বানী নিয়েই প্রশ্ন তোলেন মমতা। বিষয়িকে কারচুপি বলে সোচ্চার হন তিনি। বলেন, ‘এটা হিস্ট্রি নয়, এটা হল মিস্ট্রি।’ রাজ্য নির্বাচন কমিশন পরিচালিত আসন্ন পুর-ভোট ব্যালটে করারও আবেদন করেন জোড়াফুল শিবিরের প্রধান।