টাকা দিয়ে ব্রিগেডে লোক আনা যায় না। মোদীকে কটাক্ষ।

আমফানে কেউ ছিল না। নবান্নে বসে আমরাই সারাক্ষণ মানুষকে পাহারা দিয়েছি।

মানুষের রাজনীতির প্রথম পরিচয় তার সুষ্ঠতা, সংস্কৃতি। মোদীকে খোঁচা মমতার।

কোভিডের ইনজেকশনে নিজের ছবি লাগিয়েছে। কোভিড ভ্যাকসিনকে মোদী ভ্যাকসিন করে দিয়েছে।

স্টেডিয়াম, স্কুল কলেজ নিজের নামে করেছে মোদী। কোনদিন দেখব দেশের নাম বদলে দিয়েছে।

কাল মোদী বলে, ডাক্তার বানাব, ইঞ্জিনিয়ার বানাব। জানে না বাংলার ঘরে ঘরে ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার।

আমরা কিছু চাই না, বিনা পয়সায় গ্যাস দিন।

চাল বিনামূল্যে আর ৯০০ টাকায় গ্যাস।

ধর্ষণের শীর্ষে আহমেদাবাদ ও উত্তরপ্রদেশ।

বাংলার মেয়েরা সুরক্ষিত না হলে রাত ১০টা, ১২ টায় ঘুরে বেড়ায়, চাকরি করে কী করে।

প্রধানমন্ত্রী মিথ্যে কথা বলে এমন কোথায় দেখা যায়নি।

নারীদের অধিকার রক্ষা আমাদের প্রথম দায়িত্ব। মহিলাদের অসম্মান মানব না।

মায়েরাই হচ্ছে বঙ্গ নারী, বঙ্গ জননী। তারাই বাউল, কীর্তনীয়া, শিল্পী , সাধারণ মা বোনেরা।

বক্তব্য শুরু করলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

সুদেষ্ণা রায় বললেন, “আমি গত ৪ বছর ধরে খুব কাছ থেকে মহিলাদের সঙ্গে কাজ করেছি। মহিলাদের অবস্থা অন্য যে কোনও প্রদেশ থেকে ভাল। কারণ আমাদের এখানে রয়েছে সুপ্রশাসক।”

সায়নী ঘোষ বললেন, “নারী সুরক্ষা ও নারী নিরাপত্তার দিক থেকে বাংলা এগিয়ে কারণ আমাদের মুখ্যমন্ত্রী একজন মহিলা।”

কাকলি ঘোষ দস্তিদার বললেন, “ভারতে কোনও রাষ্ট্রনেতা নেই যিনি মহিলাদের এভাবে সম্মানীত করেন। যিনি মহিলাদের স্বার্থে একের পর এক প্রকল্প এনেছেন।”

চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য বললেন, দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদে এই মিছিল।

মঞ্চে উঠলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায়, চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য সহ অন্যান্য মহিলা নেতৃত্ব।

ডোরিনা ক্রসিংয়ে পৌঁছল মিছিল। কিন্তু মিছিলেন শেষাংশ লেনিন সরণিতে।

ক্রমশ বহরে বাড়ছে মিছিল।

কৌশানি মুৃখোপাধ্যায় বলেছেন, “আমি নিশ্চিত দিদিই মুখ্যমন্ত্রী হচ্ছেন।”

একাধিক জায়গায় তৈরি হয়েছে স্টেজ। সেখান থেকে পুষ্প বৃষ্টি করা হচ্ছে।

মিছিল পৌঁছেছে সুবোধ মল্লিক স্কোয়ারে।

মানালি দে বলছেন, বাংলা নিজের মেয়েকেই চায়। সব বয়সীর মেয়েরা মিছিলে যোগ দিয়েছে। মেয়েদের ইমোশন বোঝেন মুখ্যমন্ত্রী।

দক্ষিণবঙ্গে এদিন প্রচার শুরু করলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

মিছিলের প্রথমভাগ বউবাজারে থাকলেও শেষভাগ এখনও কলেজ স্ট্রিটে।

মিছিলের পুরোভাগে রয়েছে পোস্টার ও ব্যানার। সেখানে রান্নার গ্যাস, ও পেট্রোপণ্যের দাম বৃদ্ধির কথা বলা হয়েছে।

বর্ণাঢ্য মিছিল। বঙ্গ জজনী লেখা কলসি, একতারা নিয়ে মিছিলে যোগ দিয়েছে মানুষ।

দ্রব্যমূল্য ও পেট্রোপন্য়ের দাম বৃদ্ধি নিয়ে মিছিল।

শুরু মিছিল। মিছিল এগোচ্ছে বউবাজারের দিকে।

উপস্থিত হলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

পৌঁছেছেন একাধিক তারকা। রয়েছেন মিমি চক্রবর্তী, নুসরত, জুন মালিয়া, সুদেষ্ণা রায়, সায়ন্তিকা, কৌশানি। এছাড়া ককলি ঘোষ দস্তিদার ও শশী পাঁজা।

আন্তর্জাতিক নারী দিবসকে সামনে রেখে কলেজ স্ট্রিট থেকে জোরিনা ক্রসিং পর্যন্ত পদযাত্রা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। লক্ষ্য মহিলা ভোট। সঙ্গে থাকবেন উত্তর কলকাতা ও দক্ষিণ কলকাতার প্রার্থীরা। এখান থেকে নির্বাচনের প্রাক্কালে জনসংযোগের কাজও করবে তৃণমূল কংগ্রেস।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

করোনা পরিস্থিতির জন্য থিয়েটার জগতের অবস্থা কঠিন। আগামীর জন্য পরিকল্পনাটাই বা কী? জানাবেন মাসুম রেজা ও তূর্ণা দাশ।