নয়াদিল্লি : পশ্চিমবঙ্গের রাজনৈতিক মানচিত্রে খুব বেশি বদল হবে না। বলছে প্রাক নির্বাচনী সমীক্ষা (West Bengal pre-poll survey 2021)। টাইমস নাও-সি ভোটার জনমত সমীক্ষায় ইঙ্গত একুশে ক্ষমতায় ফিরছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee)। অন্যদিকে, ভোটের পরিমাণ বাড়তে পারে বিজেপির। ২০১৬ সালের নিরিখে তৃণমূলের ভোট কমতে পারে প্রায় ১.৯ শতাংশ। তবে ২০১৬ সালের প্রাপ্ত ১০.২ শতাংশ থেকে বাড়িয়ে ২৭.৩ শতাংশ ভোট পাবে বিজেপি (BJP )।

রাজ্যে প্রধান বিরোধী দল হিসেবে ২০১৯ সালের লোকসভা ভোটের পরেই উঠে আসে বিজেপি। তবে বেড়ালের ভাগ্যে এবারেও হয়ত শিঁকে ছিঁড়বে না। ৩৭.৫ শতাংশ ভোট পেতে পারে বিজেপি। প্রাক নির্বাচনী সমীক্ষা অনুযায়ী ২০২১ বিধানসভা নির্বাচনে ৪৩ শতাংশ আসন নিয়ে ক্ষমতায় ফিরছে তৃণমূলই। পেতে পারে ১৪৬ থেকে ১৬২টি আসন। এখানে উল্লেখ্য, ২৯৪টি আসনের বিধানসভায় ম্যাজিক ফিগার ১৪৮।

২০১৬ সালের বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপি সাকুল্যে তিনটি আসন যোগাড় করেছিল, সেখানেই লোকসভা ভোটে দারুণ ফল করে গেরুয়া শিবির। এবার সেই সংখ্যা দাঁড়াতে পারে, ৯৯টি থেকে ১১৫টির মধ্যে (BJP expected to bag over 100 seats)। এই সমীক্ষা যদি ফলে যায়, তবে রাজ্যে ফের ক্ষমতায় ফিরছেন মমতা। সামনেই বিধানসভা নির্বাচন। আর নির্বাচনের আগে ক্রমশ চড়ছে রাজনৈতিক উত্তাপ। মসনদ দখলের লড়াইয়ে ঝাঁপিয়ে পড়েছে ডান-বাম সমস্ত রাজনৈতিক দলই।

তৃণমূল কংগ্রেসের পক্ষ থেকেও একাধিকবার এই আশা প্রকাশ করা হয়েছে, যে বঙ্গে ফের দেখা যাবে মমতাকে। সাধারণ মানুষ মমতার পাশেই রয়েছে। এমন কোনও শক্তি নেই যে বাংলায় মমতাকে হারাতে পারে। ফলে আগামী নির্বাচনে ফের ক্ষমতায় আসবে তৃণমূল। এবং তৃতীয়বারের জন্যে মুখ্যমন্ত্রী হবেন মমতাই। এমনই মন্তব্য করেছিলেন তৃণমূলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়।

তবে এবার একুশের নির্বাচনে বাম কংগ্রেস জোটের ভাগ্যে খুব বেশি আশা নেই। এবার তাদের ফল আরও খারাপ হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। ২৯ থেকে ৩৭টি আসন বাম কংগ্রেস জোটের কপালে জুটবে বলেই মনে করা হচ্ছে। গতবারের বিধানসভা ভোটে বাম-কংগ্রেস জোট পেয়েছিল ৩২ শতাংশ ভোট। সমীক্ষা বলছে এবার তাও জুটবে না।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.