মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

কলকাতা: একাধিক রাজ্যে ভোট ভোট ‘উৎসব’ শুরু হলেও সারা দেশের এই মূহুর্তে নজর রয়েছে পশ্চিমবঙ্গের ভোটের দিকে। বাংলা দখলে মরিয়া হয়ে বারেবারে রাজ্যে আসছেন মোদী, আমিত শাহ, রাজনাথ সিং-এর মতো কেন্দ্রীয় নেতারা। অন্যদিকে ‘ঘরের মেয়ে’ বলে পরিচিত ‘দিদি’ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে সামনে রেখেই ভোট বৈতরণী পার করতে মরিয়া রয়েছে শাসক দল।

সূত্রের খবর মোতাবেক, আজ শুক্রবার ২৯৪ টি আসনের ক্ষেত্রেই পূর্ণাঙ্গ প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করবে তৃণমূল। কারা কোথায় প্রার্থী হচ্ছেন সম্ভবত মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সেই ঘোষণা করবেন। তবে তিনি নিজে যে নন্দীগ্রাম থেকে এবার লড়বেন তা নিশ্চিত করেছেন আগেই।

আরও পড়ুন – উপকূলে ভয়ঙ্কর ভূমিকম্প, ১০ ফুট জলোচ্ছ্বাসে সুনামির আশঙ্কা

এবারে তৃণমূলের প্রার্থী তালিকায় একাধিক চমক থাকতে পারে। আগের তুলনায় মহিলা প্রার্থীর সংখ্যা বেশি থাকার সম্ভাবনা আছে। একই সঙ্গে বেশ কিছু নতুন মুখ দেখা যেতে পারে। অন্যদিকে যাদের বয়স ৮০ অতিক্রম করে গিয়েছে, তাঁরা আর টিকিট পাবেন না বলে ঠিক করা হয়েছে। প্রার্থী তালিকা ঘোষণার আগে তৃণমূল নজর দিয়েছে মহিলা, যুবা ও স্বচ্ছ ভাবমূর্তির দিকে৷

এবার নিঃসন্দেহে বিজেপিই হচ্ছে তৃণমূলের অন্যতম প্রধান বিরোধী দল। ‘বাংলা নিজের মেয়েকেই চায়’ এই থিমেই বাংলা নিজের দখলে রাখতে সচেষ্ট শাসক দল। মনে করা হচ্ছে, এর ওপর ভিত্তি করেই ৩৫ শতাংশ আসনে মহিলা প্রার্থীর নাম ঘোষণা করা হতে পারে।

আরও পড়ুন – নয়া রেকর্ড গড়ল দেশ, একদিনে ভ্যাকসিন পেলেন ১০ লক্ষ মানুষ

অন্যদিকে আজই প্রথম দু’দফার জন্য আজ বিজেপির প্রার্থী তালিকা প্রকাশের সম্ভাবনা রয়েছে। দ্বিতীয় দফার ভোট যে সব জায়গায় হবে তার মধ্যে নন্দীগ্রামেরও নাম রয়েছে তাই এদিন এখানকার প্রার্থী ঘোষণার সম্ভাবনা প্রবল। সম্ভবত শুভেন্দু-ই প্রার্থী হবেন নন্দীগ্রাম থেকে। ফলে মমতা-শুভেন্দু দ্বৈরথ হবে নন্দীগ্রামে। অন্যদিকে আব্বাসের পরিবারের কেউ জোটের তরফে নন্দীগ্রামে প্রার্থী হতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। জোটের প্রার্থী তালিকাও শুক্রবারই ঘোষণার সম্ভাবনা আছে। যদিও এ নিয়ে নিশ্চিত কিছু জানা যায়নি।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.