কলকাতা : মাত্র অল্প কিছুদিন হল রাজ্যপাল হয়ে বাংলায় এসেছেন, কিন্তু তারপর থেকেই রাজ্য সরকারের সঙ্গে বারেবারে সংঘাতে জড়িয়েছেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়। দূরত্ব বেড়েছে শাসক দল তৃণমূলের সঙ্গেও। কিন্তু এবার সেই রাজ্যপালকেই ভাইফোঁটা দিতে চান মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী। আর সেই কারণেই তাঙ্কে আমন্ত্রণ করলেন তিনি। অবশ্য অনেকেই মনে করছেন, রাজ্যপালকে আমন্ত্রণ করে রাজনীতির আঙিনায় নতুন কার্ড খেললেন তৃণমূল সুপ্রিমো।

উল্লেখ্য, বেশ কিছুদিন ধরেই রাজ্যপালের সঙ্গে বাদানুবাদে জড়িয়েছে শাসকদল। শিলিগুড়িতে প্রশাসনিক বৈঠক হোক বা পুজোর কার্নিভালে বিতর্ক, সব মিলিয়ে রাজভবনের সঙ্গে নবান্নের বিতর্কে বারেবারে সরগরম হয়েছে বাংলার রাজনীতি। বারেবারেই রাজ্যের বিরুদ্ধে সংবাদ মাধ্যমের সামনেই তোপ দেগেছেন ধনকড়। অনদিকে তাঁর পাল্টা প্রত্ত্যুত্তর দিয়েছেন রাজ্যের মন্ত্রী সুব্রত মুখোপাধ্যায়। আবার কথা শোনাতে ছাড়েননি তৃণমূল মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়ও।

আরও পড়ুন – অজ্ঞাতবাস কাটিয়ে প্রকাশ্যে এলেন শোভন-বৈশাখী

তবে এই যাবতীয় বিতর্ক থেকে শত হস্ত দূরেই ছিলেন মমতা ব্যানার্জী। এবার এই উত্তপ্ত পরিস্থিতি আয়ত্তে আনতে পদক্ষেপ নিলেন মুখ্যমন্ত্রী। রাজ্যপালকে ভাইফোঁটায় নিমন্ত্রণের পাশাপাশি আমন্ত্রণ জানালেন কালীঘাটের বাড়ির কালীপুজোতেও। অনেকেই মনে করছেন তাঁর দলের সঙ্গে যখন রাজ্যপালের বারেবারে সংঘাতের ফলে দূরুত্ব বাড়ছিল ঠিক সেই সময় মাস্টারস্ট্রোকে সৌজন্যের বার্তা দিলেন মমতা ব্যনার্জী।

এদিকে মমতার এই আমন্ত্রণ প্রসঙ্গে সন্ধ্যের পর মুখ খুললেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়। তিনি বলেন, রাজভবনে হয়তো জানানো হয়েছে। কিন্তু তিনি এব্যাপারে জানেন না। ভাইফোঁটায় মুখ্যমন্ত্রীর ফোনের ব্যাপারে যে তিনি এবং তাঁর স্ত্রী যে খুশি সেকথাও জানান তিনি।