নয়াদিল্লি: পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে সাদৃশ্য রয়েছে উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জন উনের। তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী মমতাকে কটাক্ষ করে এই মন্তব্য করেছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী তথা বিজেপি নেতা গিরিরাজ সিং।

কিম জন উন উত্তর কোরিয়ার সর্বোচ্চ নেতা। ২০১০ সালের শেষ দিক থেকেই তিনি রাষ্ট্রের পরবর্তী উত্তরাধীকারের মতো আচরণ শুরু করেন, এবং তার বাবার মৃত্যুর পর কিমকে উত্তর কোরিয়ার রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন “মহান উত্তরাধেকারি” হিসেবে ঘোষণা করেন। তাঁর বিরুদ্ধে ঔদ্ধত্য এবং আগ্রাসনের একগুচ্ছ অভিযোগ রয়েছে। মূলত কিমের কারণেই দক্ষিণ কোরিয়ার সঙ্গে উত্তর কোরিয়ার সম্পর্ক খারাপ হচ্ছে বলে অভিযোগ রয়েছে আন্তর্জাতিক মঞ্চে।

কিন্তু সেই রাষ্ট্রপ্রধানের সঙ্গে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতার মিল কোথায়? ব্যাখ্যা করেছে মোদীর মন্ত্রী গিরিরাজ। তিনি বলেছেন, “দেশে পরশ্চিমবঙ্গ একমাত্র রাজ্য যেখানে কোনও গণতন্ত্র নেই। কিম জন উনের মত আচরণ করছেন মমতা। তাঁর বিরুদ্ধে কেউ কিছু বললেই তাঁকে হত্যা করা হচ্ছে।”

বংগ বিজেপির রথ যাত্রা প্রসঙ্গে এই মন্তব্য করেছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী গিরিরাজ সিং। রাজ্যের সকল প্রান্তে বিজেপি রথ যাত্রা করতে চায়। সেই রথে মোদী-অমিত শাহ সহ যোগী আদিত্যনাথের মতো দাপুটে নেতাদেরকেও চড়াতে আগ্রহী বঙ্গ বিজেপি। যদিও সেই যাত্রার অনুমতি দেয়নি প্রশাসন। কলকাতা হাইকোর্টে বিষয়টি ঝুলে রয়েছে।

আইনি জটিলতায় ক্রমশ পিছিয়ে যাচ্ছে বিজেপির রথযাত্রার দিন। এই অবস্থায় সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হয়েছে বঙ্গ বিজেপির নেতারা। সর্বোচ্চ আদালতের রায় বিজেপির পক্ষেই যাবে বলে আশাবাদী গিরিরাজ। মোদীর এই মন্ত্রী বলেছেন, “আমাদের কেউ থামাতে পারবে না। সুপ্রিম কোর্টে আমরা জিতবই।”

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।