স্টাফ রিপোর্টার, মালদহ: রাজীব কুমার ইস্যুতে রাজ্য সরকারকে কাঠগড়ায় তুললেন রাজ্য বিজেপির সহ সভাপতি জয়প্রকাশ মজুমদার৷ তাঁর পরিষ্কার দাবি, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও তৃণমূল কংগ্রেসের সহায়তায় দেশ ছেড়েছে, বাংলা ছেড়েছে রাজীব কুমার। সিবিআই দফতরে যাওয়ার কথা থাকলেও, যাননি রাজীব৷ তিনি একজন পুলিশ কমিশনার ছিলেন, যার উপরে নির্ভর করে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় চলেছেন। যার জন্য তিনি ধর্নায় বসেছিলেন। এটা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে জিজ্ঞাসা করা উচিত রাজীব কুমার কোথায়।

এদিন জয়প্রকাশ মজুমদার আরও বলেন মহামান্য আদালত ঐতিহাসিক রায় দিয়ে কলকাতার প্রাক্তন কমিশনার রাজীব কুমারের ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা তুলে নিয়েছে। সিবিআই সিবিআইয়ের মতো ঠিক কাজ করছে। রাজীব কুমারের কোন অধিকার নেই ভারতীয় আইন ব্যবস্থাকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে পালিয়ে বেড়ানোর। যেই তার ওপর থেকে রক্ষাকবচ তুলে নিল তারপর থেকে সে কোথায়? তার কোন খোঁজ পাওয়া যাচ্ছে না।

আরও পড়ুন : দেশে মোদী সরকার সুপার এমার্জেন্সি চালাচ্ছে : মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায়

এই বিজেপি নেতার প্রশ্ন আমরা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে জানতে চাইছি, কেন তিনি বিচার ব্যবস্থা থেকে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন। আমরা এর উত্তর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে দাবি করছি। আমরা দাবি করছি আর যদি পালিয়ে গিয়ে থাকেন তাহলে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও তৃণমূল কংগ্রেসের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হবে। কারণ তাদের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ রয়েছে এটা প্রমাণিত হলে কেউ বাঁচবেন না। হরিশ চ্যাটার্জী রোডের সবাই ধরা পড়বেন। আমরা এর বিচার চাই। দ্রুত রাজীব কুমারকে খুঁজে নিয়েছে সিবিআইয়ের সামনে হাজির করতে হবে।

অন্যদিকে উত্তর মালদহ প্রসঙ্গে এই বিজেপি নেতা বলেন, এখন তৃণমূল কংগ্রেস ভয় পেয়ে গিয়েছে৷ শুধু গেল গেল রব করছে। বিহার থেকে একজনকে নিয়ে এসেছেন যে বাঁচাও বাঁচাও বলে। উত্তর মালদহ লোকসভা জিতেছি। বিধানসভায় সাতটি আসনও বিজেপি পাবে৷ তৃণমূল কংগ্রেস উত্তর মালদহে গোল্লা পাবে।

আরও পড়ুন : আমেরিকায় হাউসফুল নরেন্দ্র মোদী শো, বিশেষ অতিথি ট্রাম্প

পাশাপাশি এনআরসি প্রসঙ্গে তিনি বলেন, গোটা বিশ্ব জানে মালদহের আফিম, জালনোট, গরুপাচারের কথা৷ এই সমস্ত হচ্ছে তৃণমূলের নিজেদের পয়সায়৷ লুঠের আর স্মাগলিংয়ের পয়সায় এই পার্টি চলছে। এই সমস্ত পয়সা গিয়ে পৌঁছেছে হরিশ চ্যাটার্জি রোডে ও কালীঘাটে। সুতরাং আজকে মালদহের লোক কেউ তৃণমূল কংগ্রেসকে চাইছে না।

মালদার হরিশ্চন্দ্রপুরে বিধানসভা নির্বাচনের প্রস্তুতি ও সাংগঠনিক বৈঠকে এই ভাষাতেই রাজ্য বিজেপির সহ সভাপতি জয়প্রকাশ মজুমদার বক্তব্য রাখেন৷ এদিন তিনি ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন জেলা বিজেপি সভাপতি গোবিন্দ চন্দ্র মন্ডল সহ জেলা নেতৃত্ব।