স্টাফ রিপোর্টার, কোচবিহার: ৩ এপ্রিলের পর ৭ এপ্রিল৷ উত্তরবঙ্গে ফের মোদী-মমতা দ্বৈরথ৷ রাসমেলার মাঠে মোদীর ভাষণের পর চূড়াভাণ্ডারে দুপুরে জনসভা ছিল মুখ্যমন্ত্রীর৷ সেই সভা থেকেই একের পর এক ইস্যু তুলে ধরে মোদীকে পাল্টা দিলেন মমতা৷ আর সেই সঙ্গে স্পষ্ট জানালেন, মোদী হারবেন, সেই ভয়ই তিনি পাচ্ছেন৷

প্রসঙ্গত, এর আগেই রাসমেলা মাঠের সভা থেকে প্রধানমন্ত্রী, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে কটাক্ষ করে বলেন, ‘দিদি যে ভয় পেয়ে গিয়েছেন তা বারবার প্রমাণিত হচ্ছে, কারণ আমার বিরুদ্ধে ক্রমশ সুর চড়ছে৷ আর আপনারা যত মোদী মোদী করছেন, সেই শুনে তাঁর ঘুম উড়ে যাচ্ছে৷ পশ্চিমবঙ্গের স্পিডব্রেকার দিদি ভয় পেয়ে নিজের কর্মী থেকে ইলেকশন কমিশনের ওপরও রেগে যাচ্ছেন৷’

এদিকে, মোদীকেও পাল্টা দলেন মমতা৷ ফালাকাটা থেকে তিনি জানালেন, ‘মোদী এখন নামেই প্রধানমন্ত্রী৷ তিনি আসলে এক্সপায়ারিবাবু৷ পাঁচ বছরে বেকারদের চাকরি দেবেন বলেছিলেন, কিন্তু আপনার আমলেই বেকারদের সংখ্যা বেড়ে গিয়েছে৷ মিথ্যে, ভাঁওতা, কুৎসা রটাচ্ছেন মোদী৷ এবারের দিল্লির নির্বাচন, বিজেপিকে পাল্টে দেওয়ার নির্বাচন৷ মোদীবাবুর বিদায়ঘন্টা বেজে গিয়েছে৷ মাঝেমাঝে উঁকিঝুঁকি মারছেন৷ আগে দিল্লি সামলে, তারপর বাংলাকে দেখুক৷ বাংলা অত সহজ নয়৷’

তিনি আরও বলেন, ‘এনআরসি হ্যাংলারা বলছে বাংলায় গিয়ে এনআরসি করবে ভাবছে৷ আমরা অলরেডি নাগরিক৷ কীসের নাগরিকত্ব দেবে মোদী? নাগরিকত্বের নাম করে সবার সবকিছু কেড়ে নেবে ভেবেছে? সারা ভারতবর্ষ যখন চুপ থাকে তখন আমরা আওয়াজ তুলি৷ তাই ভয় পাচ্ছেন মোদীবাবু৷ মমতাকে খুব ভয় পেয়েছেন৷ কুকুরের কামড়ে যেমন জলাতঙ্ক হয়, তেমন হারাতঙ্ক হয়েছে৷ খুব ভয়? মধ্যপ্রদেশ, রাজস্থান, অন্ধ্রপ্রদেশ, গুজরাত, উত্তরপ্রদেশ, দিল্লি, কর্ণাটক, তামিলনাড়ু, কেরালা, ওডিশা, বাংলায় হারবেন মোদী৷ হারাতঙ্ক রোগে ভুগছেন৷ সারদা-নারদার দালালকে নিয়ে মিটিং করছেন৷ আর বলছেন আমি ভয় পাচ্ছি! বিজেপি কী ভাবছে সবাইকে কন্ট্রোল করবে৷ সংবিধান ভেঙে দেবে? এরা কাওকে মানে না৷’

শুধু চূড়াভাণ্ডার থেকেই নয়, ফালাকাটা থেকেও মোদী সরকারকে একই বার্তা দিলেন মুখ্যমন্ত্রী৷