স্টাফ রিপোর্টার, মালদহ: উত্তর প্রদেশের বিস্ফোরণের ঘটনায় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশে মালদহে এলেন রাজ্যের মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম। রবিবার সকাল সাড়ে ১১ টা নাগাদ এনায়েতপুর গ্রামে তিনি পৌঁছান।

শনিবার এই এনায়েতপুর গ্রামের আট যুবক উত্তরপ্রদেশের ভাদোহী গ্রামে এক কার্পেট কারখানাতে বিস্ফোরণে মারা যান। কমলপুর গ্রামের এক যুবকও মারা যান। মোট ৯ জনের মৃত্যু হয়। এই খবর মুখ্যমন্ত্রী জানার পরে উদ্বেগ প্রকাশ করেন। সঙ্গে সঙ্গে ফিরহাদ হাকিমকে মালদহে যাওয়ার নির্দেশ দেন।

এদিন এনায়েতপুরে প্রত্যেক মৃত ব্যক্তির বাড়ি বাড়ি ঘুরে সবার সঙ্গে কথা বলেন ফিরহাদ। জেলাশাসক কৌশিক ভট্টাচার্যকে বলেন যারা স্বামী হারা হয়েছেন তাদের যেন আইসিডিএস দফতরে চাকরির ব্যবস্থা করা হয়। বিধবা ভাতা চালু করার নির্দেশ দেন তিনি৷ এছাড়াও মৃত ব্যক্তির বাবা মায়েদের বার্দ্ধক্য ভাতা চালু করার কথা জানান তিনি৷

সকল মৃত ব্যক্তির পরিবার পিছু ২ লক্ষ করে টাকার চেক দেন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম। সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে মন্ত্রী বলেন, এত যুবকের প্রাণ গেল এর দায় কে নেবে? উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রীকে এর পূর্ণাঙ্গ তদন্ত করতে হবে। আমাদের এখানে জামাতরা বিস্ফোরণ ঘটিয়ে ছিল। আমরা তাদের গ্রেফতার করেছি। ঘটনাস্থল থেকে গ্রেনেডের টুকরো পাওয়া গিয়েছে। মুখ্যমন্ত্রী একটি দল উত্তর প্রদেশে পাঠিয়েছেন তারা বিষয়টি দেখবেন। উত্তর প্রদেশ সরকার যদি এই ঘটনার বিচার না করে তাহলে মানুষকে এর বিচার করতে হবে। আগামীকাল রাতে মৃতদেহ গুলি মালদহ পৌঁছানোর কথা।