স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: পুজো মিটতেই বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জরি কমিশনের হারে অধ্যাপকদের বেতন ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ২০২০ সালের ১ জানুয়ারি থেকে সপ্তম পে কমিশন অনুযায়ী বেতন পাবেন সমস্ত কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপকরা। মঙ্গলবার নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়ামে কলেজ শিক্ষকদের নিয়ে এক অনুষ্ঠানে এই ঘোষণা করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

শুধু অধ্যাপকদের নয়, গেস্ট লেকচারার, পার্টটাইম শিক্ষক অর্থাৎ স্টেট এইডেট শিক্ষকদের জন্যও সুখবর দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। এদিন তিনি জানান, “গেস্ট লেকচারার, পার্টটাইম শিক্ষকদের ৫ হাজার টাকা মাসমাইনে বাড়বে”। এদিন মমতা বললেন, “২০১৬-১৭, ২০১৭-১৮, ২০১৮-১৯, ২০১৯-২০ এই ৪ বছরের জন্য ৩ শতাংশ ইনক্রিমেন্ট দেওয়া হবে”। উল্লেখ্য, পুজোর আগে ষষ্ঠ বেতন কমিশন ঘোষণা করে রাজ্য সরকার।

ইউজিসি হারে বেতন দীর্ঘদিনের দাবি কলেজ শিক্ষকদের। এনিয়ে মামলাও হয়েছে। কলেজ শিক্ষকদের দাবি ছিল, ২০১৬ সাল থেকেই কার্যকর হোক ইউজিসি হারে বেতন। তা না হওয়ায় কলেজ শিক্ষকরা যে খুশি নন তা এদিনের নেতাজি ইনডোরের সভাতেও লক্ষ করা গিয়েছে। মুখ্যমন্ত্রী বারবার জানতে চেয়েছেন, আপনারা খুশি তো? কিন্তু মুখ্যমন্ত্রীকে খুশি করা উত্তর আসেনি স্টেডিয়াম থেকে।

এদিন স্টেডিয়ামে উপস্থিত শিক্ষক-অধ্যাপকদের উদ্দেশ্যে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “আমরা গরীব সরকার কাজেই যতটুকু পারছি, ততটুকুই করছি। এমন কিছু বলব না যেটা করতে পারব না। ঘোষণা করে ঘরে ঢুকে যাব, তেমন কাজ আমি করি না।” তাঁর কথায়, “একবারেই সব দেওয়া সম্ভব নয়, ভাল করে কাজ করুন, ধৈর্য ধরুন। ধাপে ধাপে উন্নতি করছে বাংলা।”একইসঙ্গে তিনি জানিয়েছেন, নতুন হারে বেতন দিতে সরকারের প্রতিমাসে খরচ হবে বাড়তি ১হাজার কোটি টাকা।