কলম্বো: দক্ষিণ আফ্রিকার সফরের শেষ ওয়ান ডে সিরিজে ০-৫ ব্যবধানে হারের জের৷ শ্রীলঙ্কার ওয়ান ডে ক্যাপ্টেন্সি কেড়ে নেওয়া হল লসিথ মালিঙ্গার কাছ থেকে৷ বেশ কিছুদিন ধরেই সিমীত ওভারের ক্রিকেটে শ্রীলঙ্কাকে নেতৃত্ব দিয়ে আসছিলেন মালিঙ্গা৷ তাঁর নেতৃত্বেই ২০১৪ সালে টি-২০ বিশ্বকাপ জেতে দ্বীপরাষ্ট্র৷ তবে প্রোটিয়া সফরের দু’টি সীমিত ওভারের সিরিজে শ্রীলঙ্কার ভরাডুবির জন্য নেতৃত্বের ব্যাটন কেড়ে নেওয়া হল অভিজ্ঞ পেসারের হাত থেকে৷ পরিবর্তে এমন একজনকে নতুন ওয়ান ডে ক্যাপ্টেন নির্বাচিত করা হয়, যিনি ২০১৫ বিশ্বকাপের পর আর একদিনের ম্যাচে মাঠেই নামেননি৷

আরও পড়ুন: আর্চারকে বিশ্বকাপের দলে রাখল না ইংল্যান্ড

অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে টেস্ট সিরিজে ব্যর্থতার পর দীনেশ চাঁদিমলকে সরিজে দীর্ঘতম ফর্ম্যাটে ক্যাপ্টেন নির্বাচিত করা হয়েছিল দিমুথ করুণারত্নেকে৷ দক্ষিণ আফ্রিকার বরিুদ্ধে টেস্ট সিরিজে তাঁর নেতৃত্বে সফল হয় শ্রীলঙ্কা৷ পরবর্তী ওয়ান ডে ও টি-২০ সিরিজে মালিঙ্গার নেতৃত্বাধীন শ্রীলঙ্কা দল হোয়াইটওয়াশ হওয়ায় এবার ওয়ান ডে ফর্ম্যাটেও ক্যাপ্টেন্সি হাতে পেলেন করুণারত্নে৷

আরও পড়ুন: কোহলির দলে অধিকাংশ ক্রিকেটারের কেন গালভর্তি দাড়ি, প্রশ্ন তুললেন বর্ষীয়ান অভিনেতা

বিশ্বকাপের দল ঘোষণার আগে শ্রীলঙ্কা বোর্ড করুণারত্নেকে ক্যাপ্টেন নির্বাচিত করে৷ অর্থাৎ আসন্ন বিশ্বকাপে করুণারত্নেই শ্রীলঙ্কাকে নেতৃত্ব দেবেন৷ উল্লেখযোগ্য তথ্য হল দিমুথ শেষবার শ্রীলঙ্কার ওয়ান ডে জার্সি গায়ে চাপিয়েছেন ২০১৫ সালের মার্চ মাসে ওয়েলিংটনে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে৷ এখনও পর্যন্ত শ্রীলঙ্কার টি-২০ দলে অভিষেক না হওয়া করুণারত্নে মূলত টেস্ট ক্রিকেটের পারফরম্যান্স দিয়ে ঢুকে পড়েন বিশ্বকাপ দলে৷ এমনটা নয় যে, ঘরোয়া ওয়ান ডে টুর্নামেন্টেও আহামরি কিছু ফর্মে ছিলেন তিনি৷ গত সাতটি লিস্ট-এ ম্যাচে একটি শতরান ও একটি অর্ধাশতরান ছাড়া বলার মতো রান নেই তাঁর ব্যাটে৷

আরও পড়ুন: বিশ্বকাপে স্ট্যান্ডবাই ঋষভ-রায়ডু-নভদীপ

করুণারত্নে এ পর্যন্ত ১৭টি ওয়ান ডে ম্যাচে মাঠে নেমে ১৫.৮৩ গড়ে ১৯০ রান সংগ্রহ করেছেন৷ একটি মাত্র হাফসেঞ্চুরি রয়েছে তাঁর৷ বিশ্বকাপের জন্য করুণারত্নে ছাড়াও নেতৃত্বের দৌড়ে ছিলেন অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউজ, থিসারা পেরেরারা৷ মালিঙ্গাকে নেতৃত্বে রেখে দেওয়ার কথাও বিবেচনার রেখেছিলেন শ্রীলঙ্কার জাতীয় নির্বাচকরা৷