মালদহঃ  খোদ দলীয় নির্দেশকে উপেক্ষা। চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে আনা অনাস্থা প্রস্তাব প্রত্যাহারের নির্দেশ অগ্রাহ্য করলেন তৃণমূল কাউন্সিলররা। গত কয়েক সপ্তাহ আগে রাজনৈতিকমহলে জল্পনা বাড়িয়ে তৃণমূল কংগ্রেস পরিচালিত ইংরেজবাজার পুরসভার চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাব আনেন তৃণমূল কংগ্রেস কাউন্সিলাররা। আর সেই অনাস্থা প্রস্তাব প্রত্যাহারের নির্দেশ দিয়েছিলেন রাজ্যের শীর্ষ নেতৃত্ব। কিন্তু আজও সেই অনাস্থা প্রস্তাব প্রত্যাহার করা হল না।

দলের চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে আনা অনাস্থা এখনও বজায় রেখেছেন ১৫জন কাউন্সিলার। কার্যত দলের শীর্ষ নেতৃত্বদের নির্দেশকে অমান্য করেই পুরসভার অচলাবস্থা বহাল রেখেছেন তৃণমূল কংগ্রেস বিক্ষুদ্ধ কাউন্সিলাররা। শুধু তাই নয়, চেয়ারম্যানের অপসারিত না করে যদি শীর্ষ নেতৃত্ব অনাস্থা প্রস্তাব প্রত্যাহারের চাপ দেন তবে দল ত্যাগ করারও হুমকি দিয়েছেন বিক্ষুদ্ধ তৃণমূল কাউন্সিলাররা।

যদিও এই নিয়ে ইংরেজ বাজার পুরসভার চেয়ারম্যান নীহার রঞ্জন ঘোষ কোনও মন্তব্য করতে চান নি। তবে ডেপুটি চেয়ারম্যান দুলাল চন্দ্র সরকার জানান, চেয়ারম্যানের দুর্নীতি ও স্বজনপোষণের জন্য আসন্ন পুরভোটে তৃণমূল কংগ্রেস ফল ভালো হবে না। বিক্ষুদ্ধ তৃণমূল কংগ্রেস কাউন্সিলার নরেন্দ্র নাথ তেওয়ারীও জানান, চেয়ারম্যানের পাপের ভাগে ভাগীদার হতে পারবেন না। অবিলম্বে নীহার রঞ্জন ঘোষকে অপসারিত করতেই হবে বলে দাবি জানিয়েছেন দলের এই কাউন্সিলর। নরেন্দ্র নাথ তেওয়ারীর দাবি, অপসারিত না করা হলে দল ত্যাগ করবেন ১৫জন কাউন্সিলার।

অপর আরেক কাউন্সিলার বরুণ সর্দার জানিয়েছেন, সীমাহীন দুর্নীতি করেছেন চেয়ারম্যান। একনায়কতন্ত্র কায়েম করেছেন পুরসভাতে। দলের স্বচ্ছ ভাবমূর্তি কালিমালিপ্ত করেছেন তিনি। তাই অপসারণ প্রয়োজন। জেলা তৃণমূল কংগ্রেস সভানেত্রী মৌসম বেনজির নুর, বিক্ষুদ্ধ কাউন্সিলারদের এহেন আচরণে ক্ষুদ্ধ। শীর্ষ নেতৃত্বকে সমস্ত রিপোর্ট করছেন তিনি।