ইংরেজবাজারঃ  মালদহ প্রেস কর্নারের উদ্বোধন করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সাংবাদিকদের এক ছাতারতলায় আনার দীর্ঘদিনের এই স্বপ্ন পূরণ হল মালদহে। বুধবার পুরাতন মালদহে দলের কর্মী সম্মেলন সম্পন্ন করেই সরাসরি সড়কপথে কনভয় নিয়ে প্রেস কন্নারে চলে আসেন মুখ্যমন্ত্রী।

তার সঙ্গে ছিলেন রাজ্যের পুর ও নগোরন্নয়ন দফতরের মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম, ইংরেজবাজারের বিধায়ক নিহার ঘোষ, জেলাশাসক রাজর্ষি মিত্র, পুলিশ সুপার অলোক রাজোরিয়া প্রমূখ। মালদহ শহরের জেলা শাসকের অফিস সংলগ্ন এলাকাতেই গড়ে উঠেছে এই প্রেস কর্নারটি। এদিন ফিতে কেটে মালদা প্রেস কর্নারের উদ্বোধন করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা। এরপর জেলার সাংবাদিকদের সঙ্গে নিয়েই প্রেস কর্নারের প্রতিটি ঘর ঘুরে দেখেন মুখ্যমন্ত্রী। নতুন এই প্রেস কর্নারের সৌন্দর্যের প্রশংসা করেন মুখ্যমন্ত্রী।

এদিন প্রেস কর্নার উদ্বোধনের মুখ্যমন্ত্রী বলেন, মালদহ জেলার সাংবাদিকদের সবাই যেন ভালোভাবে কাজ করতে পারেন। এবং সবাই যেন ভাল থাকেন সেই কামনাই করি। কিছুক্ষণ সময় দিয়েই এবং মালদহের সাংবাদিকদের নিয়ে ছবিও তোলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এরপর সেখান থেকেই মুখ্যমন্ত্রী চলে যান মহানন্দা ভবনে।

উল্লেখ্য, মালদহ জেলায় সাংবাদিকদের নির্দিষ্ট কোন ঘর ছিল না। ফলে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে থাকা সাংবাদিকদের নির্দিষ্ট একটি অফিস ভবনের জন্য দরবার করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে। আর মুখ্যমন্ত্রীর প্রতিশ্রুতি মতোই দীর্ঘদিনের সেই স্বপ্ন এদিন পূরণ হল। ইংরেজবাজার পুরসভা এবং জেলা প্রশাসনের উদ্যোগেই মূলত তৈরি হয়েছে মালদহের প্রেস কর্নারটি । যেখানে সাংবাদিকদের বসার জায়গা, কনফারেন্স হল গড়ে তোলা হয়েছে। এবার থেকে মালদহের সাংবাদিকরা এই প্রেস কর্নার থেকে একযোগে কাজ করতে পারবেন।

বিধায়ক তথা ইংরেজবাজার পুরসভার চেয়ারম্যান নীহার ঘোষ জানিয়েছেন, খুব শীঘ্রই সাংবাদিকদের উদ্যোগে একটি কমিটি গঠন করা হবে। পাশাপাশি প্রেস কর্নারের অন্তর্ভুক্ত একটি ব্যাংকের অ্যাকাউন্ট তৈরি করা হবে। জেলার সাংবাদিকরা জানিয়েছেন, মুখ্যমন্ত্রী, জেলা প্রশাসন এবং ইংরেজবাজার পুরসভার উদ্যোগে প্রেস কর্নারটি তৈরি হয়েছে। এবার থেকে সাংবাদিকদের খোলা আকাশের নিচে বসে কাজ করতে হবে না। নির্দিষ্ট বসার জায়গা তৈরি হওয়ায় এখন খুশী জেলার সাংবাদিক মহল।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ