বাজারে কাঁচা মিঠে আমের ছড়াছড়ি এখন৷ দামও বেশ নাগালের মধ্যেই৷ এই গরমে স্বস্তি দিতে সহজ পদ্ধতিতে বাড়িতেই বানিয়ে ফেলুন আমের শরবত৷ তিন রকম শরবতের পদ্ধতি রইল আপনাদের জন্য৷ এগুলো বানানো যেমন সোজা, তেমনই খেতে সুস্বাদু৷

১৷ পোড়া আমের শরবত

উপকরণ: কাঁচা আম ২টি, পরিমাণ মত চিনি, বিট নুন, কাঁচা লঙ্কা, বরফের কুচি।

পদ্ধতি: প্রথমে ২টি আম খোসা সহ পুড়িয়ে নিন। তারপর ঠাণ্ডা হলে আমের খোসা ছাড়িয়ে নিন। দেখবেন আমের ভিতরটা নরম হয়ে গিয়েছে। এবার একটি বাটিতে পরিমাণ মত চিনি, বিট নুন, লঙ্কা নিন। আমের সাথে সব ভালো করে মিশিয়ে কিছুক্ষণ রাখুন। ব্লেন্ডারে ব্লেন্ড করুন সব এক সাথে। বরফকুচি দিয়ে ব্লেন্ড করতে পারেন। বা পরিবেশনের সময় উপরে বরফকুচি ছড়িয়ে দিতে পারেন। তৈরি আপনার প্রিয় পোড়া আমের শরবত।

২৷ আম পুদিনা শরবত

উপকরণ: কাঁচা আম ২ থেকে ৩টি, অল্প পুদিনা পাতা, পরিমাণ মত চিনি, স্বাদ মত বিট নুন, কাঁচা লঙ্কা, ১ লিটার জল৷

পদ্ধতি: কাঁচা আম খোসা ছাড়িয়ে টুকরো টুকরো করে কেটে নিয়ে একটি বাটিতে রাখুন। এবার তাতে পুদিনা পাতা, চিনি, বিট নুন, লঙ্কা মিশিয়ে নিন। মিশ্রণটি ভালো করে মেখে ১০ মিনিট রাখুন। এবার ব্লেন্ডারে অল্প জল দিয়ে পুরো মিশ্রণটি ব্লেন্ড করুন। এবার গ্লাসে জল নিয়ে মিশ্রণটি পরিমাণ মত দিয়ে মিশিয়ে নিন। ঠাণ্ডা খেতে চাইলে কিছুক্ষণ ফ্রিজে রেখে খেতে পারেন। বা বরফকুচি মিশিয়ে খেতে পারেন।

৩৷ সেদ্ধ আমের শরবত

উপকরণ: কাঁচা আম ৪টি, ১ কাপ জল, পরিমাণ মত চিনি, স্বাদ মত বিট নুন, ১চা চামচ সরষেবাটা বা গুঁড়ো, হাফ চা চামচ কাঁচা লঙ্কা বাটা, বরফকুচি।

পদ্ধতি: আম ৪টি অল্প জলে ভালো করে সেদ্ধ করে নিন। ঠাণ্ডা হলে আমের খোসা ছাড়িয়ে নিয়ে আঁটি ফেলে দিন। আমের সাথে উপকরনগুলো সব ভালো করে মিশিয়ে নিয়ে ১৫ মিনিট ফ্রিজে রাখুন। এবার পুরো মিশ্রণটি ব্লেন্ডারে অল্প জল দিয়ে ব্লেন্ড করুন ভালো করে। গ্লাসে বরফকুচি দিয়ে পরিবেশন করুন।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.