শ্রীনগর: ৩৭০ ধারা নিয়ে সমগ্র দেশ যেখানে সরগরম, সেখানে এরইমাঝে ভারতে অনুপ্রবেশের চেষ্টা করল ৫-৬ জঙ্গি৷ মঙ্গলবার মধ্যরাতে, প্রায় ২.৩০ মিনিট নাগাদ জম্মু-কাশ্মীরের মচ্ছল সেক্টরে অনুপ্রবেশের চেষ্টা করলে তাদেরকে লক্ষ্য করে গুলি ছোঁড়ে নিরাপত্তা রক্ষীরা৷ জঙ্গিরাও গুলি ছুঁড়তে শুরু করে৷ এই গুলির লড়াইয়ে এক সেনা আহত হয়েছেন বলে জানা গিয়েছে৷

গত কয়েকদিন ধরেই কেন্দ্র একের পর এক সেনাবাহিনী পাঠিয়ে কড়া নিরাপত্তায় মুড়ে ফেলেছে কাশ্মীরকে৷ এরপর, ৩০৭ ধারার বিলোপ থেকে রাজ্যসভায় Jammu & Kashmir Reorganisation Bill 2019 এবং The Jammu & Kashmir Reservation (Second Amendment) Bill 2019 পাশ হওয়ার পরেই এই ধরণের ঘটনা ঘটায় নিরাপত্তার বিষয়ে প্রশ্ন উঠেছে৷

ফাইল ছবি

উল্লেখ্য মোদী সরকার প্রথমবার ক্ষমতায় আসার পর থেকেই আলোচনা চলেছিল কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা প্রত্যাহারের বিষয়ে৷ তবে সেটা কীভাবে কার্যকর করা হবে এবং তা কবে হবে, সে সংক্রান্ত আলোচনা প্রকাশ্যে আসেনি কখনও৷

কাকপক্ষীতেও টের পায়নি৷ এতটাই গোপন ছিল কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা প্রত্যাহারের বিষয়টি৷ এমনকী এই ইস্যুতে কিচ্ছু জানতেন না স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের উচ্চপদস্থ আধিকারিকরাও৷ শুধু তাই নয় সরকারি উচ্চপদস্থ আধিকারিকরা, যাদের হাত দিয়ে বিভিন্ন ফাইল রাষ্ট্রপতি ভবনে যায় সইয়ের জন্য, তাঁরাও কোনও হদিশ পাননি ৩৭০ ধারা প্রত্যাহারের বিষয়ে৷

জম্মু কাশ্মীরের জন্য কিছু পরিকল্পনা রয়েছে কেন্দ্রের বিজেপি সরকারের৷ হাওয়ায় এই জল্পনা ছিল দীর্ঘদিন ধরেই৷ কিন্তু সেটা ঠিক কি? উত্তর ছিল না কারোর কাছে৷ ঐতিহাসিক সিদ্ধান্ত নেওয়ার ঘণ্টাখানেক আগে পর্যন্ত এই প্রসঙ্গে রীতিমত অন্ধকারে ছিলেন উচ্চপদস্থ সরকারি আধিকারিকরা৷

মোদী সরকারের এই দ্বিতীয় ইনিংসে ফের মুকুটে আরও একটি পালক যুক্ত হওয়ার মতোই এই ৩৭০ ধারার বিলোপ সাধন, এমনটাই মনে করছে অনেকে৷