ভুবনেশ্বর: পশ্চিমবঙ্গের পর এবার ওডিশা৷ সরকারি স্কুলে ভাঙচুর চালানো হল৷ শুধু তাই নয়, রীতিমত ভাঙচুর চালানো হয় জাতির জনক মহাত্মা গান্ধীর মূর্তিতে৷ ওডিশার বালাসোর টাউনের শোভারামপুর এলাকার এই সরকারি স্কুলে মহাত্মা গান্ধীর মূর্তি ভাঙার ঘটনায় হইচই পড়ে গিয়েছে৷

সোমবার গোটা ঘটনার তদন্তে নামে পুলিশ৷ জানা গিয়েছে মহাত্মা গান্ধীর স্মৃতির উদ্দেশ্যে তৈরি করা বাপুজী কক্ষে ভাঙচুর চালানো হয়৷ সেখানেই ছিল জাতির জনকের মূর্তিটি৷ তবে ভাঙচুর চালানোই নয়, গোটা ঘর জুড়ে ছড়িয়ে ছিল আধ পোড়া সিগারেটের টুকরো ও খালি মদের বোতল৷

আরও পড়ুন : লোকসভায় শপথগ্রহণে বাবুল-দেবশ্রী হাজির হতেই ‘জয় শ্রীরাম’ ধ্বনি বিজেপির

রবিবার কিছু স্থানীয় ব্যক্তি স্কুল চত্বরে প্রবেশ করেন৷ তখনই দেখতে পান স্কুল চত্বরে লাগানো কিছু গাছ মাটিতে কাটা অবস্থায় পড়ে রয়েছে, ছড়ানো ছিটানো অবস্থায়৷ বাপুজি কক্ষের তালা ভাঙা দেখতে পান তাঁরা৷ মূর্তিটি মাথা ভাঙা অবস্থায় ছিল বলে জানা যায়৷

স্থানীয়দের বিশ্বাস এলাকার দুষ্কৃতীরাই এই ধরণের নক্কারজনক ঘটনার সঙ্গে যুক্ত৷ গরমের ছুটি চলার জন্য এই স্কুলটি আপাতত বন্ধ৷ সেই সুযোগেই তারা এই কাজ ঘটিয়েছে বলে মনে করছেন স্থানীয় বাসিন্দারা৷ স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছন সাহাদেবকুন্তা পুলিশ স্টেশনের আইসি শুভ্রাংশু শেখর নায়েক৷ তবে এই ঘটনায় কোনও রাজনৈতিক দল জড়িয়ে রয়েছে বলে মনে করছে না পুলিশ৷ একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে৷ কারা এই ঘটনার সঙ্গে জড়িত তা খুঁজে বের করার চেষ্টা চলছে৷

আরও পড়ুন: বারাণসীর মন্দির চত্বরে নিষিদ্ধ হতে চলেছে মদ্যপান ও মাংস বিক্রি

এদিকে, মে মাসের মাঝামাঝি, বিজেপি সভাপতি অমিত শাহের রোড শো চলাকালীন কলকাতায় বিশৃঙ্খলা ছড়িয়ে পড়ে৷ ধর্মতলা থেকে বিধান সরণিতে বিবেকানন্দের বাড়ি পর্যন্ত সেই শো হয়৷ কলেজ স্ট্রিটে অমিত শাহের লরি পৌঁছাতেই শুরু হয় উত্তেজনা৷ কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের কলেজ স্ট্রিট ক্যাম্পাসের সামনে থেকে গেরুয়া শিবিরের প্রধানকে কালো পতাকা দেখানো হয় টিএমসিপির তরফে৷ যা ঘিরে উভয় শিবিরের মধ্যে গন্ডগোল শুরু হয়৷

পরে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে বিধান সরণিতে বিদ্যাসাগর কলেজ সংলগ্ন এলাকায়৷ বিজেপি ও টিএমসিপি, উভয় তরফেরই অভিযোগ, তাদের লক্ষ্য করে অন্যপক্ষ প্রথমে আক্রমণ করে৷ বাইকে আগ্নি সংযোগ থেকে ইঁট বৃষ্টি, মঙ্গল সন্ধ্যায় রণক্ষেত্রের আকার নেয় বিধান সরণির ওই অংশ৷ সংঘর্ষে আহত হয় দু’তরফের বেশ কয়েকজন৷ সংঘর্ষের মাঝেই ভেঙে দেওয়া হয় কলেজের মধ্যে থাকা বিদ্যাসাগরের মূর্তিটি৷ ভাঙচুর হয় বিদ্যাসাগর কলেজের সম্পত্তিও৷ পদ্ম শিবিরকে তোপ দাগেন মুখ্যমন্ত্রী৷ সমালোচনার ঝড় বয়ে যায় বঙ্গের বিশিষ্টজনদের তরফেও৷