মুম্বই: একদিকে লাফিয়ে হু হু করে বাড়ছে সংক্রমণ। দেশের মধ্যে মহারাষ্ট্রেই করোনা সংক্রমণ স্বাভাবিক। এরই মধ্যে মহারাষ্ট্রে আইন শৃঙ্খলা জোরদার করতে এবং পুলিশ বাহিনীর কাজের চাপ কমিয়ে আনতে প্রায় ১০,০০০ কনস্টেবল নিয়োগ হতে চলেছে। মঙ্গলবার একথা জানিয়েছেন উপ-মুখ্যমন্ত্রী অজিত পাওয়ার।

এছাড়া নাগপুরের কাতোলতালুকায় একটি অল ওম্যান ব্যাটেলিয়ান অফ দ্য স্টেট জার্ভ পুলিশ ফোর্সের একটি ব্যাটালিয়নও তৈরি করা হবে বলে জানানো হয়েছে।

একটি সরকারি বিবৃতি অনুসারে মন্ত্রালয়ে মিঃ পওয়ারের সভাপতিত্বে একটি বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে। এই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন রাজ্যের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অনিল দেশমুখ ও অন্যান্য ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, “রাজ্যে আইন শৃঙ্খলা জোরদার করতে এবং কাজের চাপ কমাতে পুলিশ কনস্টেবল বিভাগে ১০,০০০ কর্মী নিয়োগের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

মনে করা হচ্ছে, এই নিয়োগ প্রক্রিয়ায় শহর ও গ্রামীণ উভয় অঞ্চলের যুবকরা লাভবান হবে। কারণ তারা পুলিশ বাহিনীতে চাকরি করার সুযোগ পাবে। এই নিয়োগ যাতে আগামী এক বছরের মধ্যে সম্পন্ন হয়, সেদিকে আধিকারিকদের নজর রাখতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। একদিকে পুরুষ কনস্টেবল পদে ১০,০০০ নিয়োগ, অন্যদিকে জানানো হয়েছে ১৩৮৪ টি পদে মহিলাদের নেওয়া হবে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।