মুম্বই: ফের ‘জয় শ্রীরাম’ নিয়ে বিতর্ক৷ এবার ঔরঙ্গাবাদে৷ ঘটনা রবিবারের৷ শেখ আমের নামে এক ব্যক্তি সাংবাদিকদের জানান, রবিবার রাতে তিনি যখন তাঁর বন্ধুর সঙ্গে কাজের জন্যে বের হন, তখন কয়েকজন তাদের পথ আটকায়৷ আমের বলেন, ওই কয়েকজন তাদের জয় শ্রীরাম বলতে বাধ্য করা হয়৷ তারা তা বলতে অস্বীকার করলে ওই যুবকরা তাদের হুমকি দিতে থাকে৷

ঘটনাস্থলে একটি সিসিটিই থাকায়, সমগ্র বিষয়টি ক্যামেরাবন্দি হয়ে যায়৷ পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে পুলিশও মোতায়েন করা হয়৷ ঔরঙ্গাবাদের পুলিশ কমিশনার চিরঞ্জিবী প্রসাদ বলেন, তদন্ত শুরু হয়েছে এবং সকলকে গুজব না ছড়ানোর এবং পরিবেশকে অশান্ত না করে তোলার আর্জি জানানো হচ্ছে৷ গত ১৯ জুলাই একদল অপরিচিত ব্যক্তি এক হোটেল কর্মী ইমরান ইসমাইল প্যাটেলকে জয় শ্রীরাম বলতে বাধ্য করে৷

পড়ুন: চাঁদে জলের সন্ধান প্রথম দিয়েছিল ভারত, এবার কি মিলবে প্রাণের খোঁজ

এর আগে, চলতি মাসেই ‘জয় শ্রীরাম’ বলা নিয়ে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে উত্তরপ্রদেশ৷ উন্নাওয়ের মাদ্রাসার ছাত্ররা ‘জয় শ্রীরাম’ না বলায় ভারতীয় জনতা যুব মোর্চার সদস্যরা মারধোর করে বলে জানা যায়৷ দায়ের করা এফআইআর থেকে জানা যায়, মাদ্রাসা দার-উল-উলুম ফইজ-ই-আজমের ১২-১৪ বছর বয়সী ছাত্ররা ক্রিকেট খেলছিল৷ সেসময় কয়েকজন সেখানে উপস্থিত হয় এবং তাদের জোর করে ‘জয় শ্রীরাম’ না বলায় তাদের ওপর বিজেওয়াইএম সদস্যরা চড়াও হয়৷ ব্যাট, উইকেট দিয়ে ওই ছাত্রদের পেটাতে থাকে তারা৷

আরও জানা যায়, এক পড়ুয়া এতে মাথায় আঘাত পায়, তাকে হাসপাতালে ভরতি করা হয়েছে৷ ইতিমধ্যেই অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে৷ এবং এই অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত শুরু হয়েছে বলে জানা গিয়েছে৷ এই হামলায় যুক্ত বলে অভিযোগ করেন উন্নাওয়ে জামা মসজিদের ইমাম ভারতীয় জনতা যুব মোর্চার সদস্যরা৷ তিন অভিযুক্তকে চিহ্নিত করা হয়৷