ফাইল ছবি।

হরিদ্বার: দিন গোনা শুরু হয়ে গিয়েছে হরিদ্বারে মহাকুম্ভ ২০২১-এর। এই মেলায় বহু মানুষের সমাগম হয়। মহাকুম্ভের জন্য আর হাতে দু মাসও সময়ও বাকি নেই। বর্তমান করোনা সংকটের সময় মহাকুম্ভের আয়োজন উদ্যোক্তাদের কাছে এক বড় চ্যালেঞ্জ। কোনভাবেই উদ্যোক্তারা এবার মহাকুম্ভ বাতিল করতে রাজি নয় ‌।

১১ বছর পর ফের এমন মহাকুম্ভ হচ্ছে হরিদ্বারে। এর আগে ২০১০ সালে শেষ হয়েছিল। সেবারে ১.৬৩ কোটির ভক্ত ও যাত্রী সমাগম হয়েছিল। ১৪ জানুয়ারি থেকে শুরু হয়ে এপ্রিলের শেষ পর্যন্ত মহাকুম্ভ চলবে।

কুম্ভমেলা অধিকারী দীপক রাওয়াত জানিয়েছেন, সরকারি গাইডলাইন মেনে অতিরিক্ত ব্যবস্থা মাথায় রেখে পরিকল্পনা করা হয়েছে । তিনি জানিয়েছেন, ভিড় সামলাতে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে সিসিটিভি বসিয়ে নজরদারি চালানো হবে।

ফাইল ছবি।

এই অতি মহামারীর বছরে জরুরীকালীন তৎপরতায় ১০০ শয্যাবিশিষ্ট করোনা হাসপাতালের ব্যবস্থা রাখা হচ্ছে এবং অন্যান্য অসুস্থতার কথা চিন্তা করে ৫০ শয্যাবশিষ্ট অপর একটি হাসপাতালের ব্যবস্থা করা হচ্ছে।‌ উত্তরাখণ্ড সরকার পর্যাপ্ত পরিমাণে মাস্ক সরবরাহের ব্যবস্থা করছে।

তিন মাস ধরে চলা কুম্ভ মেলায় গঙ্গায় পরিবেশের দূষণ হতে পারে ।‌ সে ক্ষেত্রে গঙ্গা পরিষ্কার করার দায়িত্ব পড়ে কেন্দ্রীয় জল শক্তির অন্তর্গত ন্যাশনাল মিশন ফর ক্লিন গঙ্গা (এন এম সি জি)এর উপর। এরাই বিভিন্ন ধর্মীয় অনুষ্ঠানের পর গঙ্গা পরিস্কারের দায়িত্ব নেয়।

ফাইল ছবি।

হরিদ্বারে নতুন করে গড়ে তোলা হয়েছে নিকষী ট্রিটমেন্ট প্লান্ট। গত মাসে এই নতুন ট্রিটমেন্ট প্লান্ট উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এনএমসিজি ডিরেক্টর রঞ্জন মিশ্র জানিয়েছেন, সিভিক অথরিটি ২০টি নালার সঙ্গে হরিদ্বারকে যুক্ত করেছে। যাতে ভবিষ্যতে ভক্ত এবং যাত্রী সমাগমে নিকাশি ও বর্জ্য পরিষ্কার অসুবিধা না হয়। হরিদ্বারের ঘাটের সৌন্দর্যায়নের কাজ চলছে।

ইন্ডিয়ান অয়েল হর কি পৌরি ঘাট পুনর্নির্মাণ করে এক কিলোমিটার দীর্ঘ নতুন চন্ডিঘাট তৈরি করেছ রাতে কুম্ভ মেলা ভক্ত ও যাত্রী সমাগমের চাপ নিতে পারে। তাছাড়া পাবলিক আর্ট প্রজেক্ট এর কাজ চলছে যার মাধ্যমে অস্ট্রেলিয়া সুইজারল্যান্ড জাপান মালয়েশিয়া নেপাল থেকে আসা শিল্পীরা রাস্তায় হিন্দু পুরাণের নানা ছবি ও মুরাল তৈরির কাজে ব্যস্ত।

সপ্তম পর্বের দশভূজা লুভা নাহিদ চৌধুরী।