SBI bank
এসবিআই ব্যাংক

মেঘালয়: আজকের দিনে এটিএম অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। যে কোন সময় টাকা তোলার ক্ষেত্রে সব থেকে সুবিধাজনক সাধারণ মানুষের কাছে। তবে এবারে জানা গিয়েছে মেঘালয়ের কাছে পশ্চিম গারো হিলের তুরা শহরের কাছে নয়া এটিএম পরিষেবা নিয়ে এল এসবিআই। মনে করা হচ্ছে এই ফলে সুবিধা হবে সেখানকার সাধারণ মানুষের।

ওই এটিএমের উদ্বোধনের সময়ে সেখানে ছিলেন একাধিক উচ্চ পদস্থ কর্তারা। সকলেই এসবি আইয়ের এই পদক্ষেপের সাধউবাদ জানিয়েছেন। প্রশাসনের তরফে পাওয়া তথ্য থেকে জানা গিয়েছে এসবিআই আগামীতে আরও চারটি ব্রাঞ্চ খুলতে চলেছে।

যেগুলি হবে যথাক্রমে তুরা, উইলিয়ামনগর, পুরাখাসিয়া, এবং দামাল্গ্রে এলাকাতে হবে। ওই সকল ব্রাঞ্চে থাকবে এটি এমের সুবিধা। পাশপাশি সেখানকার সাধারণের জন্য আরও বেশ কিছু পদক্ষেপ নিতে চলেছে এসবিআই। এর ফলে মনে করা হচ্ছে সুবিধা হবে সেখানকার সাধারণ মানুষের।

সেখানকার পুলিশ আধিকারিকের তরফে জানা গিয়েছে এসবিআইয়ের সঙ্গে যুক্ত হয়ে সেখানে পড়াশোনার ক্ষেত্রেও পদক্ষেপ নেওয়া হবে। যাতে সেখানকার মানুষজন ব্যাঙ্কিং পরীক্ষা গুলি দিয়ে চাকরি পেতে পারে সেই বিষয়েও খেয়াল রাখা হবে। এই পদক্ষেপের ফলে সুবিধা হবে সেখানকার সাধারণ যুবকদের। পাশপাশি মনে করা হচ্ছে আগামীতে ওই এলাকাতে ক্রমেই গুরুত্ব বাড়বে এসবিআইয়ের।

যদিও এর আগেও এসবি আইয়ের তরফে নেওয়া হয়েছে একের পর এক পদক্ষেপ। তবে তার মধ্যে এই নয়া পদক্ষেপের ফলে সুবিধা হবে সাধারণ মানুষের। পাশপাশি যুবকদের চাকরির ক্ষেত্রে পদক্ষেপ নেওয়াতে অল্প বয়সীদের কাছেও ক্রমেই যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠবে এই ব্যাংক।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.