ইন্দোর: এন-৯৫ মাস্ক ব্যবহারকারীদের বিরুদ্ধে এবার কড়া ব্যবস্থা নেওয়ার পথে মধ্যপ্রদেশের ইন্দোর জেলা প্রশাসন। এন-৯৫ মাস্ক পরে এবার থেকে বাড়ির বাইরে পা দিলেই ১০০ টাকা জরিমানা করা হবে বলে জানিয়েছে প্রশাসন।

ভালভ যুক্ত এন-৯৫ মাস্ক পরে রাস্তায় বের হলেই গুনতে হবে আর্থিক জরিমানা। প্রশাসনের এই সিদ্ধান্তে অখুশি ব্যবসায়ীরা। তাঁদের দাবি, প্রশাসন এন-৯৫ মাস্কে নিষেধাজ্ঞা জারি করলে করোনা আবহে তাঁদের ব্যাপক আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হতে হবে।

দেশে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ছড়ানোর পর থেকেই এন-৯৫ মাস্ক ব্যবহারের চল বাড়ে। তবে কিছুদিন আগেই যাবতীয় পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর খোদ স্বাস্থ্যমন্ত্রক এন-৯৫ মাস্ক ব্যবহারের ক্ষেত্রে তাঁদের আপত্তির কথা জানায়।

স্বাস্থ্যমন্ত্রকের যুক্তি বিশেষ এই মাস্কে ভালভ থাকায় তা বিপজ্জনক। করোনা আক্রান্তদের মধ্যে কেউ এই মাস্ক ব্যবহার করলে তাঁর থেকে অন্যদের মধ্যেও সংক্রমণ ছড়ানোর আশঙ্কা রয়েছে। সেই কারণেই এন-৯৫ মাস্ক এড়িয়ে চলতে আবেদন করে স্বাস্থ্যমন্ত্রক।

যদিও তারপর থেকেও অনেকে এখনও ভালভ যুক্ত এন-৯৫ মাস্ক ব্যবহার করে চলেছেন। রাজ্যে-রাজ্যে এখনও বহু মানুষ এন-৯৫ মাস্ক ব্যবহার করছেন। তবে মধ্যপ্রদেশের ইন্দোর জেলা প্রশাসন এবার এই মাস্ক নিয়ে কঠোর পদক্ষেপ করছে।

জেলা প্রশাসনের তরফে সাফ জানানো হয়েছে, এন-৯৫ মাস্ক পরে কেউ রাস্তায় বেরোলেই তাঁকে ১০০ টাকা জরিমানা করা হবে। একটি নির্দেশিকা জারি করে প্রশাসন জানিয়েছে, স্বাস্থ্য দফতরের আধিকারিক ও স্বাস্থ্যকর্মীরা ছাড়া অন্য কেউ এন-৯৫ মাস্ক ব্যবহার করলে ১০০ টাকা জরিমানা করা হবে।

এদিকে, ইন্দোর জেলা প্রশাসনের এই নির্দেশিকায় ক্ষোভে ফেটে পড়েছেন জেলার ওষুধ ব্যবসায়ী থেকে শুরু করে মাস্ক ব্যবসায়ীরা। করোনা ছড়িয়ে পড়ার পর থেকেই তাঁরা প্রচুর এন-৯৫ মাস্ক বিক্রির উদ্দেশ্যে মজুত করেছেন। আচমকা এই মাস্কে নিষেধাজ্ঞা জারি করায় তাঁদের বিপুল আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়তে হবে বলে তাঁরা জানিয়েছেন।

পপ্রশ্ন অনেক: একাদশ পর্ব

লকডাউনে গৃহবন্দি শিশুরা। অভিভাবকদের জন্য টিপস দিচ্ছেন মনোরোগ বিশেষজ্ঞ।