জবলপুর: সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার কৌশলেই করোনার চেইন ভাঙা গিয়েছে বলে দাবি স্থানীয় প্রশাসনের। গত ১২ দিনে নতুন করে মধ্যপ্রদেশের জবলপুরে কেউই করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হননি। আপাতত জবলপুর করোনা-মুক্ত বলেই দাবি করেছেন স্থানীয় প্রশাসনের আধিকারিকরাও।

করোনাভাইরাসের চেইন ভাঙা সম্ভব হয়েছে বলে দাবি মধ্যপ্রদেশের জবলপুর প্রশাসনের। শহরবাসীর নিরন্তর প্রয়াস ও প্রশাসনের সবস্তরের কর্মীদের নিরলস প্রচেষ্টাতেই শহর সফল ভাবে করোনার সংক্রমণ ঠেকিয়ে দিতে পেরেছে বলে দাবি করেছেন প্রশাসনের আধিকারিকরা।

মধ্যপ্রদেশে প্রথম চার করোনা আক্রান্তই জবলপুরের বাসিন্দা। দুবাই-ফেরত এক কিশোরী ও তাঁর বাবা, মা এবং জার্মানি থেকে ফেরা এক ছাত্রের শরীরে প্রথম মধ্যপ্রদেশে করোনাভাইরাস ধরা পড়ে। ২০ মার্চ প্রথম করোনা আক্রান্তের খোঁজ মেলার পরের দিনই গোট জবলপুর শহর লকডাউন করে দেয় স্থানীয় প্রশাসন। তারই ফল মিলেছে হাতেনাতে।

জানা গিয়েছে, অন্তত ২০ লক্ষ মানুষ বাস করেন মধ্যপ্রদেশের রাজধানীর ৩০০ কিমি দূরত্বে থাকা এই শহরে। জবলপুরে করোনা আক্রান্ত ৪ জনের খোঁজ মেলার পর থেকেই চূড়ান্ত তৎপরতা গ্রহণ করে স্থানীয় প্রশাসন। ওই চারজন কাদের সংস্পর্শে এসেছিলেন দ্রুত তা খুঁজে বের করার নির্দেশ দেন জবলপুরের কালেক্টর।

প্রশাসনিক আধিকারিকদের চটজলদি তৎপরতার ফলও মিলেছে। দ্রুত আক্রান্তদের সংস্পর্শে আসা ব্যক্তিদের খুঁজে বের করে তাঁদের কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হয়। এরই পাশাপাশি ৪ করোনা আক্রান্তেরও চিকিৎসা চলতে থাকে।

লকডাউন মেনে চলার জন্য প্রশাসনের তরফে আবেদন করা হয় শহরবাসীকে। প্রশাসনের অন্য কর্তাদের সঙ্গেই মারণ ভাইরাসের সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়া রুখতে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করে পুলিশ। লকডাউন চলাকালীন গোটা জবলপুরে নজরদারি কয়েকগুণ বাড়িয়ে দেয় পুলিশ। লকডাডউন সুশৃঙ্খলভাবে পালন করতে শহরজুড়ে ২ হাজার ‘করোনা স্বেচ্ছাসেবক’ নিয়োগ করা হয়। তাঁরাই দিনরাত এক করে লাকডাউন পালন করার জন্য শহরবাসীকে আবেদন করতে থাকেন।

জবলপুরবাসীও প্রশাসনের সঙ্গে সম্পূর্ণরূপে সহযোগিতা করে চলেছেন। সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখেই মিলেছে ফল। গত ১২ দিনে নতুন করে একটি করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার ঘটনা সামনে আসেনি। আর তাই জবলপুর প্রশাসনের দাবি, আপাতত করোনা-মুক্ত সাধের শহর।

যদিও মঙ্গলবার পর্যন্ত মধ্যপ্রদেশে ৩১৩ জন করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন বলে জানা গিয়েছে। শুধু মঙ্গলবারেই জবলপুর ছাড়া রাজ্যের একাধিক জায়গা মিলিয়ে মোট ৫৭ নতুন করোনা আক্রান্তের খোঁজ মিলেছে।

Proshno Onek II First Episode II Kolorob TV