মদন মোহনের রাস মেলার প্রস্তুতি শুরু জেলা প্রশাসনের

0

শুভেন্দু ভট্টাচার্য, কোচবিহার: আগামী ১৪ নভেম্বর থেকে শুরু হতে চলেছে কোচবিহারের মদন মোহনের রাস উৎসব৷ ঐতিহাসিক রাস উৎসবকে কেন্দ্র করে মেলার প্রস্তুতি শুরু করল জেলা প্রশাসন। আজ জেলা শাসকের দফতরের ল্যান্সডাউন হলে পুরসভা, দেবত্র ট্রাষ্ট বোর্ড, পুলিশ, দমকল , ব্যবসায়ী সমিতির প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠক করেন জেলা শাসক পি উলগানাথন, দুই অতিরিক্ত জেলা শাসক চিরঞ্জীব ঘোষ, সুনীল আগরওয়াল, কোচবিহার সদর মহকুমা শাসক অরুন্ধতী দে। এবারের রাশ মেলায় নিরাপত্তা ব্যবস্থার গুরুত্ব দেবার পাশাপাশি রাশ মেলাকে ‘নো স্মোকিং জোন’ হিসেবে ঘোষণা করবে জেলা প্রশাসন। এদিনের বৈঠকে মেলার মাঠে তামাক জাত দ্রব্য ও গুটখা বিক্রি বন্ধে পুরসভাকে সক্রিয় ভূমিকা নির্দেশ দেওয়া হয়েছে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে।

আগামী ১৪ নভেম্বর সন্ধ্যা ৭ টায় রাশ চক্র ঘুড়িয়ে কোচবিহারের ঐতিহ্যবাহী রাশ মেলার সূচনা করবেন জেলা শাসক পি উলগানাথন, তার আগে কোচবিহার পুরসভা পরিচালিত রাশ মেলার সূচনা হবে। ২০০ বছরের বেশি পুরানো এই মেলা উত্তরপূর্ব ভারতের অন্যতম বড় মেলা। প্রতিবছর লক্ষাধিক মানুষ এই মেলাতে ভিড় করেন। নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়ে এবার যথেষ্টই চিন্তায় জেলা প্রশাসন কারণ নভেম্বর মাসে কোচবিহার লোকসভা আসনের উপ নির্বাচন হতে পারে । আর সেটা যদি হয় তবে যথেষ্ট পরিমাণে পুলিশ পাওয়া নিয়ে সমস্যায় পরতে হতে পারে, তাই এই মেলা নিয়ে অনেকটাই সতর্ক জেলা প্রশাসন। এবারের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিশ্ছিদ্র করতে বেশি সংখ্যায় সিসিটি ক্যামেরা বসানোর চিন্তা ভাবনা চলছে৷ এছাড়াও বিভিন্ন স্থানে পর্যস্ত পরিমাণে মহিলা পুলিশ মোতায়েন করা হচ্ছে। পুরসভাকে নির্দেশ দেওয়া হয়ে মেলা কোথাও বিড়ি, সিগারেট, গুটখা বিক্রি যাতে না হয়। এছাড়াও মেলা প্রঙ্গনকে নো স্মোকিং জোন হিসেবে ঘোষণা করা হচ্ছে। এদিন বৈঠকের পর জেলা শাসক পি উলগানাথন বলেন, ‘‘মেলার নিরাপত্তা ব্যবস্থা যাতে জোরদার থাকে, তার জন্য পুলিশকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে৷ পুরসভাও তাঁদের মত কাজ করবে৷” প্রতিবারের মতো এই বারেও শান্তিপূর্ণ মেলা আয়োজন করা হবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ