বারাকপুর: উপনির্বাচনের দিনে দফায় দফায় উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে উত্তর ২৪ পরগনা জেলার ভাটপাড়া। যদিও সংঘর্ষ শুরু হয়েছিল শনিবার রাত থেকেই। এবার ভটের শেষবেলায় প্রকাশ্যে এসে তৃণমূল প্রার্থী মদন মিত্রের বিরুদ্ধে চাঞ্চল্যকর অভিযোগ তুললেন বিজেপি নেতা অর্জুন সিং।

ভাটপাড়া উপনির্বাচনে রণক্ষেত্র কাঁকিনাড়ার কাটাপুকুর এলাকা৷ তৃণমূল বিজেপির মধ্যে ব্যাপক সংঘর্ষ৷ হয় বোমাবাজি৷ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশের লাঠিচার্জ করে৷ ঘটনাস্থলে পৌঁছে কেন্দ্রীয় বাহিনীও লাঠি চার্জ করে৷

এদিন বিকেলের দিকে কাঁটাপুকুর এলাকার মাঠে ঝামেলা শুরু হলে ঘটনাস্থলে পৌঁছান বিজেপি নেতা তথা বারাকপুর লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী অর্জুন সিং। সেখানে পুলিশের সঙ্গে বচসায় জড়িয়ে পরেন তিনি। তাঁর নিরাপত্তারক্ষীদের সঙ্গে একপ্রস্থ ধস্তাধস্তিও হয় পুলিশের। সেই সময়েই তিনি শনিবার থেকে ভাটপাড়ায় ঘটে যাওয়া যাবতীয় হিংসাত্মক ঘটনার জন্য মদন মিত্রকে কাঠগড়ায় তোলেন।

অর্জুন সিং-এর দাবি, “বাইরে থেকে ছেলে নিয়ে এসে ভাটপাড়ায় হিংসা ছড়াচ্ছেন মদন মিত্র।” একই সঙ্গে তিনি আরও বলেন, “ভাটপাড়ার অনেক হিন্দু বাড়িতে হামলা চালান হচ্ছে। হিন্দুদের চারটে বাড়িতে আগুন লাগিয়ে দেওয়া হয়েছে।” কিন্তু কেন এমন হচ্ছে? এই প্রশ্নের উত্তরে অর্জুন সিং বলেছেন, “উনি কেন এমন করছেন সেটা মদন মিত্রকে জিজ্ঞাসা করুন।”

এদিন সকালে বুথ পরিদর্শনের সময় কেন্দ্রীয় বাহিনীর সঙ্গে বচসায় জড়িয়ে পড়েন তৃণমূল প্রার্থী মদন মিত্র৷ এরপরই পরিস্থিতি জটিল হতে শুরু করে৷ কিছুক্ষণের মধ্যেই শুরু হয় বোমাবাজি৷ বিজেপির অভিযোগ, তৃণমূলই এই কাজ করেছে৷ গুলি চলেছে বলেও অভিযোগ গেরুয়া শিবিরের৷

উপনির্বাচনের আগে শনিবার রণক্ষেত্রের চেহারা নেয় ভাটপাড়া৷ বোমাবাজি ও গুলি চালানোর অভিযোগ উঠে৷ ভাটপাড়ার ১৩ নং ওয়ার্ডের আর্য সমাজ মোড়ে পর পর দুটি গাড়িতে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়৷ ঘটনাস্থলে পৌঁছায় পুলিশ ও কেন্দ্রীয় বাহিনী৷ পাশাপাশি ঘটনাস্থলে দমকল বাহিনী এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

এদিন সকালে রবিবার রাজ্যের শেষ দফায় লোকসভা ভোটের পাশাপাশি চলছে উপনির্বাচন৷ ভোট চলাকালীন ভাটপাড়া বিধানসভা এলাকার কামারহাটিতে উত্তেজনা৷ পুলিশকে ঘিরে বিক্ষোভ৷ ঘটনাস্থলে যান তৃণমূল প্রার্থী মদন মিত্র৷ তাঁর অভিযোগ, কেন্দ্রীয় বাহিনী তৃণমূল কংগ্রেসের একটি ক্যাম্প অফিস ভাঙচুর করেছে৷ শুধু তাই নয় মহিলাদেরকেও মারধর করা হয়েছে৷