দেবযানী সরকার, কলকাতা: তারাপীঠের জাগ্রত মা৷ বিপদ আপদ থেকে বাঁচতে রাজ্য তো বটেই গোটা দেশ থেকেই মায়ের কাছে ছুটে আসেন ভক্তরা৷ তিনিই বা তার ব্যতিক্রম হন কি করে৷ আর তাই, আশু বিপদের আভাস পেয়ে সোজা সেই মায়ের পায়েই মাথা ঠেকালেন মদন মিত্র৷ নারদকান্ডে ডাক পরেছে তৃণমূল নেতা ইকবাল আহমেদের৷ আর কে না জানে, সিবিআই এর লিস্টে মদন মিত্র নামটাও জ্বলজ্বল করছে৷ যে কোনদিন আবার ডাক আসতে পারে৷ তাই বিপদ কাটাতে তড়িঘড়ি সোজা তারাপীঠে মায়ের পায়ে মাথা রাখলেন নারদের অন্যতম মূল অভিযুক্ত মদন মিত্র৷

নারদ কাণ্ডে ইকবাল আহমেহকে বৃহস্পতিবার তলব করেছে সিবিআই৷ হাজিরা দিতে হবে সিবিআই দফতরে৷ আর এদিনই তারাপীঠে গিয়ে সপরিবারে পুজো দিলেন নারদের অন্যতম অভিযুক্ত মদন মিত্র৷ বৃহস্পতিবার সকালে সপরিবারে পুজো দিয়ে মহাভোগ খান তিনি৷ মায়ের কাছে বিপদ কাটাবার প্রার্থনাও করেন তিনি৷

অনেকদিন ধরেই সময় ভাল যাচ্ছে না মদন মিত্রের৷ সারদা মামলায় অনেকদিন জেলবন্দী থাকতে হয়েছে তাঁকে৷ গিয়েছে মন্ত্রীত্ব৷ জেলে বসেই হার স্বীকার করতে হয়েছে বিধানসভা ভোটে৷ ফলে গেছে বিধায়ক পদও৷ দলের সমস্ত পদ থেকেও অনেক দূরে৷ সারদা মামলা থেকে পুরোপুরি নিস্তার মেলার আগেই আবার মরার উপর খাঁড়ার ঘা হিসেবে কপালে ভাঁজ ফেলেছে নারদ মামলা৷ জেলে থাকার সময়ই গ্রহের ফের কাটাতে জ্যোতিষীর পরামর্শে নিয়মিত হনুমান চল্লিশা পড়তেন তিনি৷ এবার কী সেই জ্যোতিষীর পরামর্শেই তারাপীঠে ছুটলেন? মায়ের কাছে পুজো দিয়ে এই অশান্তি থেকে মুক্তি চাইলেন?

এই প্রশ্নের উত্তর অবশ্য জানা যায়নি৷ তবে পুজো দিয়ে প্রাক্তণমন্ত্রী বলেন, বাংলাকে রাহুর নজর থেকে মুক্ত করার জন্য মাকে পুজো দিলাম৷ আগামী পঞ্চায়েত নির্বাচনে একটা দলেরই পতাকা থাকবে সেটা ওয়ান অ্যান্ড ওনলি তৃণমূল কংগ্রেসের পতাকা৷

হনুমান চলিশা পড়ার পরই সারদা মামলায় জামিন হয়েছিল বলেই বিশ্বাস করেন একসময়ের প্রভাবশালী নেতা মদন মিত্র৷ ইকবাল আহমেদকে ডেকে নারদ মামলায় তৃণমূল নেতাদের ডাকার শুভসূচনা করেছে সিবিআই৷ নাম আছে মদনেরও৷ এবার তারাপীঠে মায়ের পায়ে পুজো দিয়ে নারদ মামলায় মদন মিত্র কতদিন সিবিআই জেরা ঠেকাতে পারেন সেটাই এখন দেখার৷