মুম্বই: ২০০ কোটি লখনউ মিউনিসিপাল কর্পোরেশন বন্ড আজ নথিভূক্ত হল বম্বে স্টক এক্সচেঞ্জে(বি এস ই)। এই উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। এই নথিভুক্তির ফলে লখনউ হল উত্তর ভারতের প্রথম শহর এবং দেশের মধ্যে নবম শহর যে বন্ড ইস্যু করে তহবিল সংগ্রহ করছে।

গতমাসে লখনউ মিউনিসিপাল ২০০ কোটি টাকা তুলেছে বিএসই প্লাটফর্মকে কাজে লাগিয়ে প্রাইভেট প্লেসমেন্টের মাধ্যমে। এর আগে নভেম্বর মাসে লখনউ মিউনিসিপাল কর্পোরেশন বন্ড বি এস ই প্লাটফর্মে ৪৫০ কোটি টাকাাা পেয়েছেন যেখানে ১০০ কোটি টাকার ইস্যু ছিল।

এই মিউনিসিপাল বন্ড দিচ্ছে বার্ষিক ৮.৫ শতাংশ সুদ এবং এর মেয়াদ ১০বছর। এই বন্ড থেকে তোলা টাকা খরচ করা হবে অটল মিশন ফর রিজুভেনেশন অ্যান্ড আরবান ট্রানসফর্মেশনের জল প্রকল্পে এবং আবাসন প্রকল্পে। মূল্যায়ন সংস্থা লখনউ মিউনিসিপাল কর্পোরেশন বন্ডের ইন্ডিয়ার রেটিং দিয়েছে ‘এএ’ ।

উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ জানিয়েছেন, এই কোভিড পরিস্থিতিতে লখনউ মিউনিসিপাল কর্পোরেশন আত্মনির্ভর এর পথে এগোচ্ছে তার ২০০কোটির‌ বন্ড নথিভুক্তির মাধ্যমে। কর্পোরেশন দায়বদ্ধ তার নাগরিকদের জীবন আরও উন্নত করার জন্য।

এদিকে আবাসন এবং নগর উন্নয়নমন্ত্রক জানিয়েছে, সামনের মাসে গাজিয়াবাদ বারানসী আগ্রাএবং কানপুর মিউনিসিপাল কর্পোরেশন তাদের বন্ড ইস্যু করবে। এর পরে পাশাপাশি রাজ্যে ছোট ছোট শহরগুলি বন্ড ইস্যু করা হবে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।