কেউ অনায়াসে বলে ফেলেন মনের কথা। কেউবা দূর থেকেই দেখে যান ভালবাসার মানুষটিকে। প্রেমে পড়লে, অনেক সময় সহজে মনের কথা বলে ওঠা যায় না। গোপনেই থেকে যায় সেসব কথা। তবে কেউ আবার প্রেমের প্রস্তাব তো দূরের কথা ডেটিংয়ের প্রস্তাব দিয়ে বসেন। বলতে গেলে কেউ প্রেমে অন্তর্মুখী কেউ বহির্মুখী। তবে কে মনের কথা বলে দিতে পারেন এক নিমেষে আর কে কেবলই অপেক্ষা করে যান সেটা বলে দেবে রাশিফল

ভার্গো, লিব্রা, স্করপিও:

ধরি মাছ না ছুঁই পানি। এটাই হল মনের মানুষকে মনের কথা বলার মূলমন্ত্র এই রাশির জাতক-জাতিকাদের। সরাসরি না বললেও, কথাবার্তায়, হাবেভাবে তাঁরা সবসময়ই বুঝিয়ে দিতে চান, কোন মানুষটিকে তাঁদের মনে ধরেছে এবং তাঁর সঙ্গে আলাদা করে সময় কাটাতে চাইছেন।

লিও, ক্যাপ্রিকর্ন, পাইসেস:

মনের কথা খুব সহজেই জানিয়ে দেওয়া এদের প্রেমের ইউএসপি। কাউকে মনে ধরলে সে কথা কখনও লুকিয়ে রাখেন না এই রাশির জাতক-জাতিকারা। পাশাপাশি ডেটে যাওয়ার প্রস্তাবও দিয়ে ফেলেন সহজেই। বলতে গেলে প্রেমের বাজারে ভেরি ফাস্ট।

টরাস, জেমিনি, ক্যানসার:

বুক ফাটে তো মুখ নয়। এই কথাটি এদের জন্য একদম প্রযোজ্য। মোদ্দাকথা, এই রাশির জাতক-জাতিকারা বেশ লাজুক প্রকৃতির হন। তাইতো বন্ধুই এদের অস্ত্র প্রেমের ক্ষেত্রে। এরা মনে করেন বন্ধুত্বের মাধ্যমেই বুঝিয়ে দেবেন নিজেদের মনের কথা। তাই অপর ব্যক্তির সবচেয়ে ভাল বন্ধু হয়েই তাঁদের মনের কথা বুঝে নিতে চেষ্টা করেন।

স্যাজিটেরিয়াস, অ্যাকোয়ারিয়াস, এরিস:

প্রেমের বাজারে কেউকেটা এদের বলা চলে। সব ঠিক করে তবেই এগিয়ে যান এরা। আসলে এই রাশির জাতক-জাতিকারা যাঁদের ভালবাসেন তাঁদের থেকে ভালবাসা পাওয়ার চেষ্টায় মগ্ন থাকেন। তাই নিজের মনের কথা ভালবাসার মানুষটিকে বলার থেকে তাঁরা অপর ব্যক্তিটিকে নিজের প্রেমে ফেলার প্রচেষ্টায় বেসি সময় দেন।  আর যখন অপরপক্ষ তাঁদের জন্য একইরকম অনুভব করেন, তখন সুযোগ বুঝে নিজেদের মনের কথা জানান।