লখনউঃ  মোদীর নেতৃত্বেই ভারতে এগিয়ে যাবে বিজেপির বিজয় রথ। যেভাবে ত্রিপুরা সহ একাধিক নর্থ-ইস্ট রিজিয়নের একাধিক রাজ্য বিজেপি ক্ষমতায় এসেছে, আগামিদিনে পশ্চিমবঙ্গ, ওড়িশা, কেরালা, কর্নাটকে খুব তাড়াতাড়ি ক্ষমতা আসবে বিজেপি। ত্রিপুরার জয়ের পরেই এমনটাই মন্তব্য করলেন উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। আর এভাবেই একদিন কাশ্মীর থেকে কন্যাকুমারী পর্যন্ত রাজ করবে বিজেপি। এমনটাই দাবি যোগীর।

প্রসঙ্গত, শনিবারই ত্রিপুরা সহ একাধিক রাজ্যে বিজেপি জয়জয়কার হয়েছে। এই ঐতিহাসিক জয়ের পরেই অমিত শাহ কার্যত ‘যুদ্ধ’ ঘোষণা করে দিয়ে বলে, “যতক্ষণ না ওড়িশা, পশ্চিমবঙ্গ আর কেরালায় বিজেপি ক্ষমতায় আসবে, ততক্ষণ পর্যন্ত সোনালি অধ্যায় শুরু হয়েছে এমনটা বলা যাবে না।”

আর আজ এভাবেই অমিত শাহের সুরে সুর মেলালেন মুখ্যমন্ত্রী। তাঁর দাবি, মোদীর উন্নয়নই হাতিয়ার বিজেপির জয়ের জন্যে। যেভাবে দেশজুড়ে উন্নয়ন চলছে তাতে সাধারণ মানুষ চাইছেন যে তারাও উন্নয়নের স্বাদ পান। আর সেই লক্ষ্যে পশ্চিমবঙ্গ, ওড়িশা, কেরালা, কর্নাটকের মতো যেসব রাজ্যে এখনও পর্যন্ত বিজেপি ক্ষমতায় নেই, সেখানে পরিবর্তন হবে বলে দাবি তাঁর।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.

কোনগুলো শিশু নির্যাতন এবং কিভাবে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো যায়। জানাচ্ছেন শিশু অধিকার বিশেষজ্ঞ সত্য গোপাল দে।