সৌপ্তিক বন্দ্যোপাধ্যায়, হাওড়া : পদ্ম, ভারতের জাতীয় ফুল। সেই ফুলই মণ্ডপ সজ্জার বিষয় হাওড়ার, স্বাস্থ্য ও সংস্কৃতি সংসদের। দেবীর এক হাতে ত্রিশূল থাকলে অপর নয় হাতের এক হাতে থাকে পদ্ম। যা শান্তির বার্তা দেয়। পাঁকে ফোটে, তবু তার এত মহিমা। ঠিক এটাই মণ্ডপ সজ্জায় তুলে ধরতে চেয়েছে হাওড়ার এই বারোয়ারী পুজো কমিটি।

পদ্মের উপর বসেন প্রজাপতি ব্রহ্মা। সৃষ্টি কর্তাদের যিনি প্রধান। পদ্ম ছাড়া দুর্গা পুজো হয় না। কিন্তু পদ্মই আজ সহজে মেলে না। পুকুর যত বুজিয়ে দেওয়া হচ্ছে স্বাভাবিকভাবেই কমছে পদ্মের জন্মস্থল। অন্যন্য পুজোয় পদ্ম দরকার না লাগলেও দুর্গা পুজোয় অতি আবশ্যক। অন্তত দুর্গা পুজোর স্বার্থে পদ্ম বাঁচানো হোক। এমনই বার্তা দিতে চাইছে স্বাস্থ্য ও সংস্কৃতি সংসদ।

আরও পড়ুন: নাম, ঠিকানা সহ তিন কোটি ফেসবুক ইউজারের তথ্য ফাঁস

মণ্ডপের শুরু থেকে শেষ পদ্মে মুড়ে দেওয়া হয়েছে। তবে পুরোটাই ইন্সটলেশন। ফোম এবং বিশেষ ধরনের মোটা কাগজ দিয়ে পদ্ম পাতা ও ফুল বানানো হয়েছে। প্লাস্টিক প্যাকেট ব্যবহার করে এর তলা দিয়ে নীল রঙের আলো দেওয়া হয়েছে। জলের উপর যে পদ্ম ফুটেছে সেটা বোঝাতেই এই নীল আলোর ব্যবহার।

মণ্ডপের উপরের দিকেও কাগজের উপর বিভিন্নভাবে পদ্মের কারুকার্য করা হয়েছে। মণ্ডপের বাইরেও একইরকমভাবে একটি বড় পদ্মফুল রাখা হয়েছে। আলোর ক্ষেত্রেও আলো আঁধারির ব্যবহার করা হয়েছে। ক্লাব কর্তা কাজল বলেন, “পদ্ম জাতীয় ফুল হয়েও বিপন্ন সেটাকে বোঝাতেই পদ্মের বিষয় বেছে নিয়েছি। দুর্গা পুজোয় পদ্ম ছাড়া হবে না অথচ সেই ফুলের চাহিদা মেটানো সম্ভব হয় না। দর্শকদের পদ্মের প্রতি সচেতনতা বৃদ্ধি করতেই আমাদের এই বিষয়।”

আরও পড়ুন: ভূমিকম্পে কেঁপে উঠল এই দেশ, ক্রমশ বাড়ছে মৃতের সংখ্যা

মণ্ডপ শিল্পী সুমন বলেন, “আমরা মা চারেক ধরে মণ্ডপ তৈরি করতে খাটছি। একটি বাংলা চ্যানেলে প্রপ সাপ্লাই করি। পাশাপাশি বছর দুয়েক মণ্ডপ তৈরির কাজ করছি। শিবপুরের নবারুণ সংঘে দুই বছর কাজ করেছি। গত বছর অনেকগুলো কালীপুজোয় মণ্ডপ বানিয়েছিলাম। এই বছর দুর্গা পুজোয় এখানে কাজ করছি। কম বাজেটের মধ্যে ভালো কাজ করাই আমাদের লক্ষ্য। সেটাই এখানে করার চেষ্টা করছি।”

আরও পড়ুন: শুভশ্রীর পুজো লুকে মাত সাইবারবাসী

ক্লাব কর্তারা জানাচ্ছেন, তাদের পুজো উদ্বোধনে বস্ত্র বিতরণ করা হবে দুঃস্থ শিশুদের। দশমীর পরে পাড়ার প্রায় হাজার জনকে নিয়ে বিজয়া সম্মেলনী পালন করা হয়। পাশাপাশি সারা বছর রক্তদান শিবির, বৃক্ষ রোপণের মতো সামাজিক কাজের আয়োজন করা হয়।

আরও পড়ুন: ঘূর্ণিঝড় ‘তিতলি’র আঘাতে টেকনাফে আটকে ১০০ বেশি পর্যটক

প্রশ্ন অনেক-এর বিশেষ পর্ব 'দশভূজা'য় মুখোমুখি ঝুলন গোস্বামী।