স্টাফ রিপোর্টার, কলকাতা: শেষ পর্যন্ত তারা হাজির হয়েছে শহরে। বৃহস্পতিবার ভোরে মাদ্রাজ ক্রোকোডাইল ব্যাঙ্ক অ্যান্ড সেন্টার ফর হারপেটোলজি থেকে শহরে এসে পৌছল ৪টি ইয়েলো অ্যানাকোন্ডা। তাই দীর্ঘ অপেক্ষার পর শহরের মানুষের স্বচক্ষে অ্যানাকোন্ডা দেখার শখ মিটতে চলেছে।

প্রায় বছর দেড়েক ধরে আলিপুর চিড়িয়াখানায় অ্যানাকোন্ডা আনার তোড়জোড় চলছিল। সেজন্য তৈরি হয় তিন ফুট গভীর জলাশয়। দীর্ঘ প্রস্তুতি পর্ব পেরিয়ে সব প্রস্তুতি সেরে অবশেষে তারা চারজন হাজির হয়েছে কলকাতায়। বিনিময়ে আলিপুর থেকে চেন্নাই গিয়েছে চারটি কেউটে বা মনোক্লেড কোবরা এবং চারটি শাঁখামুটি বা ব্যান্ডেড ক্রেট।

চিড়িয়াখানার অধিকর্তা আশীষ কুমার সামন্ত বলেন, “এখন চার মাস মতো বয়স অ্যানাকোন্ডাগুলির। ওরা অনেকটা পথ পেরিয়ে এসেছে। তবে লম্বা রাস্তা পেরোলেও ইয়েলো অ্যানাকোন্ডাগুলি সুস্থ রয়েছে।”

হলুদ অ্যানাকোন্ডাগুলির দৈর্ঘ্য চার থেকে সাড়ে চার ফুট। লম্বা হতে পারে প্রায় ১৬ ফুট। ওজন হতে পারে প্রায় ১০০ কেজি।

আশীষবাবু এও জানিয়েছেন, “এক মাস পর্যবেক্ষণে রাখার পর দর্শকদের সামনে আনা হবে অ্যানাকোন্ডাগুলি।” আপাতত তাই দর্শকদের আরও একটু তর সইতেই হবে।