কলকাতাঃ  ভোট পরবর্তী সমীক্ষায় জয়জয়কার বিজেপির। সমীক্ষা বলছে ৩০০-এরও বেশি আসন পেয়ে ফের ক্ষমতায় আসছেন নরেন্দ্র মোদীই। কিন্তু এই সমীক্ষা সম্পূর্ণ গুজব বলে কার্যত উড়িয়ে দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পালটা ইভিএমে যাতে কোনও কারচুপি কেউ না করতে পারে সেজন্যে কর্মীদের নজর রাখার নির্দেশ দিয়েছেন তৃণমূল নেত্রী। এই অবস্থায় যখন ইভিএমে কারচুপি নিয়ে প্রশ্ন তুলতে শুরু করেছেন বিরোধীরা, সেই সময় ভোট গণনাতে নিরাপত্তায় কোনও খামতি রাখতে চাইছে না নির্বাচন কমিশন।

বাংলা এক সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত খবর মোতাবেক, রাজ্যের ৫৮টি কেন্দ্রে গণনা হবে। ওইসব গণনা কেন্দ্রের জন্য ১৪৪ জন পর্যবেক্ষক পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন কমিশন। মূলত তাঁদের নজরদারিতে ত্রিস্তরীয় নিরাপত্তা ব্যবস্থায় বৃহস্পতিবার সকাল আটটা থেকে গণনা শুরু হবে। যদিও প্রকাশিত খবর খবর মোতাবেক, মাত্র ৫৮ জন পর্যবেক্ষক চেয়েছিল মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিকের দফতর। কিন্তু কমিশন মুখ্য নির্বাচনি আধিকারিকের সেই আবেদন খারিজ করে প্রায় কয়েকগুণ বাড়িয়ে দিয়েছে পর্যবেক্ষকের সংখ্যা। শুধু তাই নয়, যে কোনও ধরনের অশান্তি এড়াতে গণনা কেন্দ্রের বাইরে ১৪৪ ধারা জারি করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

মূলত গণনা হবে চারটি পদ্ধতিতে। ১) প্রথম পোস্টাল ব্যালটের ভোট গণনা হবে। ২) এরপর গণনা করা হবে সার্ভিস ভোটারদের ভোট। তিনটি খামের ভিতরে থাকবে পোস্টাল ব্যালট। প্রথমে খোলা হবে বাইরের খাম, তারপরের খামের ভিতর থাকবে সার্ভিস ভোটারের ডিক্লেয়ারেশন এবং তৃতীয় খামে থাকবে পোস্টাল ব্যালট। এই খামের ভিতরে পোস্টাল ব্যালটের সঙ্গে থাকবে কিউআর কোড। এই কোড স্ক্যান করা হবে। যদি স্ক্যান মিলে যায়, তবেই এই ভোট গণনা করা হবে।

৩) এরপরই ইভিএমের ভোট গণনা করা হবে। ইভিএমের সঙ্গে থাকা কন্ট্রোল ইউনিট নিয়ে আসা হবে স্ট্রং রুম থেকে। গণনা কেন্দ্রে ১৪টি টেবিল থাকবে। ১৭ থেকে ২০ রাউন্ড গণনা হবে। এ ক্ষেত্রে যদি কোনও কন্ট্রোল ইউনিট বিগড়ে যায়, তখন তার ভিভিপ্যাটের গণনা করা হবে। ৪) কন্ট্রোল ইউনিটের গণনা শেষ হয়ে গেলে শুরু হবে ভিভিপ্যাটের গণনা। লটারির মাধ্যমে প্রত্যেক বিধানসভা থেকে পাঁচটি করে ভিভিপ্যাট স্ট্রং রুম থেকে নিয়ে আসা হবে কাউন্টিং হলের ভিতরে। ভিভিপ্যাটের পেপার গণনা করে ইভিএমের সঙ্গে মেলাবেন গণনা কর্মীরা। কমিশনের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, প্রতি রাউন্ডের গণনার পর সব রাজনৈতিক দলের এজেন্টের সই নিতে হবে। ‘নিউ সুবিধা’ অ্যাপে প্রতি রাউন্ডের গণনার পরে ফলাফল ডাউনলোড করতে হবে। ভিভিপ্যাটের গণনার জন্য এবার বেশি সময় লাগবে। সূত্র-বাংলা এক সংবাদমাধ্যম।