স্টাফ রিপোর্টার, মালদহ: করোনার সংক্রমণ ঠেকাতে লকডাউনের ওপর আরও জোর দিল মালদহ পুলিশ। প্রশাসনের নতুন এক নির্দেশিকায় জানানো হয়েছে ভিড় এবং জমায়েত ঠেকাতে আপাতত শুক্রবার থেকে রবিবার পর্যন্ত তিন দিন ইংরেজবাজার পুরাতন মালদহ সহ আরও বেশ কিছু এলাকায় সমস্ত বাজার হাট বন্ধ থাকবে। নিত্য প্রয়োজনীয় খাদ্য সামগ্রী দোকান সকাল এগারোটার মধ্যেই বন্ধ করে দিতে হবে।

শহরের বাইরের মানুষকে ঢুকতে দেওয়ার ক্ষেত্রেও নতুন করে নির্দেশিকা জারি করা হয়েছে। অসুস্থ রোগী এবং জরুরী পরিষেবা মূলক মানুষেরাই শুধু ইংরেজবাজার শহরে যাতায়াত করতে পারবেন। লকডাউনের মুহূর্তে শহরে ঢোকার যে এলাকাগুলি রয়েছে যেমন গৌড়রোড, সুকান্তপল্লী , আইটিআই মোড়, সাহাপুর দ্বিতীয় সেতু সহ একাধিক এলাকা পুলিশি ব্যারিকেড দিয়ে আটকে দেওয়া হয়েছে।

অবাঞ্চিত ভাবে যানবাহন চলাচল করার ক্ষেত্রেও কঠোর নির্দেশিকা জারি করা হয়েছে প্রশাসনের পক্ষ থেকে। বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই লকডাউন সফল করতে কড়া হাতে ময়দানে নামে ইংরেজবাজার থানার পুলিশ। বিভিন্ন এলাকায় জমায়েত ঠেকাতে লাঠিপেটা করতেও দেখা যায় অভিযানকারী পুলিশকর্তাদের।

যদিও এদিন সকাল থেকেই মালদহ শহরের অধিকাংশ ব্যস্তবহুল এলাকায় ছিল শুনশান ।যানবাহন চলাচলের ক্ষেত্রে পুলিশ ধরপাকড় করেছে। মানুষকে সচেতন করেছে। মাস্কবিহীন যাদের দেখা গিয়েছে, তাদের আটক করে বসিয়ে রাখা হয়েছে। পুলিশের এই অভিযান এবং কড়া পদক্ষেপ কিছুটা হলেও স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলেছে মালদা শহরের বাসিন্দারা। তাঁদের বক্তব্য, এই ধরনের ব্যবস্থা আরো আগে থেকে নেওয়া উচিত ছিল। তাহলে ইংরেজবাজার শহরের সংক্রমণ এরকমভাবে বাড়তো না।

এদিকে মালদহের জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের করোনা পজেটিভ ধরা পড়ার পর আপাতত আদালত বন্ধের পথে হাঁটতে চলেছে আইনজীবিদের একটা বড় অংশ। জরুরী কালীন পরিষেবা ছাড়া মালদহ আদালতের আইনজীবীরা এই মুহূর্তে কোনও রকম ঝুঁকি নিতে চাইছেন না।

তাই শুক্রবার থেকে এক প্রকার আইনজীবীদের কাজকর্ম বন্ধ রাখার উপরই বিশেষ পদক্ষেপ নেওয়ার কথা জানা গিয়েছে। এদিকে লকডাউন কড়াকড়ি হতেই তিনদিন বাজার বন্ধের বিষয়টি জানাজানি হওয়ার পর বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই মালদহ শহরের চিত্তরঞ্জন পুরো বাজার, নেতাজী পুরো বাজার, সদরঘাট, মকদমপুর সহ বিভিন্ন বাজারগুলিতে সাধারণ ক্রেতাদের ভিড় উপচে পড়ে মাছ, মাংস, সবজি কেনা কাটার হিড়িক পড়ে যায় সাধারণ মানুষের মধ্যে।

এই পরিস্থিতিতে ইংরেজবাজার থানার পুলিশকে রাস্তায় নেমে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে হয়। এদিকে স্বাস্থ্য দফতরের তথ্য অনুযায়ী, বৃহস্পতিবার নতুন করে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৬৭ জন। এখনও পর্যন্ত করোনায় মালদহ জেলায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা গিয়ে দাঁড়ালো ১৩৯১।

যদিও এর মধ্যে ৮১০ জন করোনায় আক্রান্ত রোগী সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। তবে এদিনের আক্রান্ত ৬৭ জনের মধ্যে ৪০ জনই রয়েছে রতুয়া থানা এলাকার। বাকি রয়েছে মানিকচক , ইংলিশবাজার, পুরাতন মালদহ, কালিয়াচক থানা এলাকার।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ