মুম্বই: দেশের মধ্যে সর্বাধিক করোনা আক্রান্ত সংখ্যা রয়েছে মহারাষ্ট্রে। এই রাজ্যের মুম্বইতেই আক্রান্তের সংখ্যা সর্বাধিক। যদিও মহারাষ্ট্রে কিছুটা লকডাউনে শিথিলতা আসলেও মনে করা হচ্ছে, লকডাউনের মেয়াদ বাড়বে মুম্বইতে।

লকডাউন এবং সম্ভাব্য শিথিলতা নিয়ে কথা বলতে গিয়ে রাজ্যের জলসম্পদ মন্ত্রী জয়ন্ত পাতিল বলেন, ২৯ অথবা ৩০ মে পরিস্থিতি পর্যালোচনা করা হবে। ৩১ মের পরে নরেন্দ্র মোদীর নির্দেশের উপর নির্ভর করে কিছুটা শিথিলতা আনা হতে পারে বলে জানিয়েছেন তিনি।

মহারাষ্ট্রের কর্মকর্তারা বলছেন, কেন্দ্র যে সিদ্ধান্ত নেবে তার ওপর অনেক কিছু নির্ভর করছে। কংগ্রেস নেতা শরদ পওয়ারের মতো শীর্ষ নেতারা সতর্কতার সঙ্গে লকডাউন খোলার পক্ষে। যদিও মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে বলেছেন, তিনি লকডাউন বাড়াতে চান না। কিন্তু সংক্রমণের সংখ্যা অনেক বেড়ে গেলে লকডাউন করতে হবে।

অন্যদিকে তথ্য বলছে দেশের ৭০ শতাংশ Covid-19 ঘটনা দেখা গিয়েছে মাত্র ১৩টি শহরে। করোনা ভাইরাস পরীক্ষায় সবথেকে বেশি রিপোর্ট পজিটিভ এসেছে যে সব জায়গা থেকে তাদের মধ্যে রয়েছে- মুম্বই, চেন্নাই, দিল্লি, আহমেদাবাদ, থানে, পুণে, হায়দরাবাদ, কলকাতা, ইন্দোর, জয়পুর, যোধপুর, চেঙ্গালপুট্টু এবং থিরুভাল্লুর।

বর্তমানে মহারাষ্ট্র, দিল্লি, গুজরাত, রাজস্থানের পাশাপাশি খারাপ অবস্থা তামিলনাডুর। বৃহস্পতিবার নতুন করে ৮২৭ জন করোনা ভাইরাসে সংক্রমিত হয়েছেন। ওই রাজ্যে বর্তমানে মোট সংক্রমণ ১৯,৩৭২।

মহারাষ্ট্র মন্ত্রীসভা লকডাউন তোলা হবে কিনা বা কতটা শিথিলতা আনা হবে তা নিয়ে আগামী কয়েকদিনের মধ্যে বৈঠকে বসতে পারে। দেশের মধ্যে সর্বাধিক সংক্রামিত রাজ্য হওয়ায় লকডাউন তোলা হবে কিনা তা নিয়ে দ্বন্দ্বে ভুগছেন অনেকেই।

Proshno Onek II First Episode II Kolorob TV