সিওল : সবদিক খতিয়ে দেখেই ঝুঁকি নিয়েছিল দক্ষিণ কোরিয়া সরকার। লকডাউন শিথিল করে খোলা হয়েছিল কিছু সংস্থা ও বিদ্যালয়। তারপরেই নতুন করে হামলা শুরু করোনাভাইরাসের। বিবিসি, এএফপি সংবাদ সংস্থার রিপোর্ট, নতুন করে করোনাভাইরাসের প্রকোপ বাড়তে থাকায় দক্ষিণ কোরিয়ার বিদ্যালয়গুলি ফের বন্ধ করা হয়েছে। সংক্রমণ নতুন করে ছড়াচ্ছে।

রিপোর্টে বলা হয়েছে, নতুন করে করোনা আক্রান্তদের অধিকাংশই বুচেওন শহরের একটি ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানের কর্মী। এর পরেই প্রায় ২৫১টি বিদ্যালয় বন্ধ করা হয়েছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা(হু) আগেই সতর্ক করেছিল, যেসব দেশ লকডাউন শিথিল বা তুলতে চাইছে সেখানে করোনা আরও ভয়াবহ হামলা করবে।

তারপরেও দক্ষিণ কোরিয়া সরকার ঝুঁকি নেয়। ফের শুরু হয়েছে সংক্রমণ। ওয়ার্ল্ডোমিটার জানাচ্ছে, দক্ষিণ কোরিয়ায় করোনা আক্রান্ত ১১,৪০০ জনের বেশি। মৃত ২০০ পার করেছে। এদিকে দক্ষিণ এশিয়াতে করোনার ভয়াবহ সংক্রমণের শিকার ভারত, পাকিস্তান এবং বাংলাদেশ। সর্বাধিক সংক্রমণ ও মৃত্যু ভারতেই।

ওয়ার্ল্ডোমিটারের হিসেবে শনিবার পর্যন্ত মৃত ৪,৯০০ পেরিয়েছে। সংক্রামক রোগী ১ লক্ষ ৭৪ হাজারের বেশি। দক্ষিণ কোরিয়ার মতো বাংলাদেশ এবং ভারতের অঙ্গরাজ্য পশ্চিমবঙ্গে এবং লকডাউন উঠছে ১ জুন থেকে। ধাপে ধাপে এই ব্যবস্থা পুরোপুরি তোলা হবে।

বিশেষজ্ঞদের আশঙ্কা, লকডাউন তোলা মাত্রই হু হু করে করোনা সংক্রমণ আরও ছড়াবে। বাড়বে মৃত্যু। দক্ষিণ কোরিয়ার মতো অবস্থা হবে। বিবিসির খবর, নতুন করে করোনা সংক্রমণ হওয়ায় দক্ষিণ কোরিয়া সরকার ফের রজধানী সিওল এবং আশপাশের শহরগুলিতে জমায়েতপূর্ণ স্থান বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছে।

Proshno Onek II First Episode II Kolorob TV