নয়াদিল্লি: এবার যদি লকডাউন আরও বৃদ্ধি করা হয় তাহলে অর্থনীতির দিক থেকে সর্বনাশ হবে। বিশেষত স্বাস্থ্য ক্ষেত্রে অন্য এক সংকট সৃষ্টি হবে। এমনটাই মনে করছেন মহিন্দ্র গোষ্ঠীর চেয়ারম্যান আনন্দ মহিন্দ্রা। তবে তার অভিমত, নীতি নির্ধারকদের কাছে এটা বেছে নেওয়া সহজ কাজ নয়। তার বক্তব্য, লকডাউন বৃদ্ধি হলে এক্ষেত্রে কোনও সাহায্য হবে না।

আনন্দ মহেন্দ্র টুইট করে জানিয়েছেন, লকডাউন বৃদ্ধি শুধুমাত্র অর্থনৈতিক দিক থেকে সর্বনাশ নয় যা আগেই টুইট করে জানানো হয়েছিল, কিন্তু তাছাড়াও স্বাস্থ্যে আর একটা সংকট সৃষ্টি হবে।

এই প্রসঙ্গে তিনি একটি প্রবন্ধের কথা উল্লেখ করেছেন যেখানে বলা হচ্ছে- লকডাউনে করোনা আক্রান্ত নয় এমন রোগীদের জন্য অবহেলার ঝুঁকি এবং সাংঘাতিক মানসিক প্রভাব পড়বে।

এই শিল্পপতি যিনি এর আগে ৪৯ দিন লকডাউন চলার পর তা তুলে নেওয়ার প্রসঙ্গে বলেছিলেন, এটা নীতি নির্ধারকদের জন্য বেছে নেওয়াটা সহজ কাজ নয় কিন্তু লকডাউন বৃদ্ধি কোনরকম সহায়তা করবে না।

তার বক্তব্য, করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে যাবে এবং নজর দেওয়া দরকার মাঠে ঘাটে অক্সিজেনের লাইন সহ হাসপাতালের শয্যা বাড়ানো। তার মতে, এক্ষেত্রে সেনাদের ভালোই দক্ষতা রয়েছে।

গত ২২ মার্চ, সরকারের দেশজুড়ে লকডাউন জারি করার কথা ঘোষণার আগে বিভিন্ন রিপোর্ট জানিয়েছিল ভারত ইতিমধ্যেই করোনা সংক্রমণের ক্ষেত্রে তৃতীয় স্তরের পৌঁছে গিয়েছে আর তা দেখে মহিন্দ্র উদ্বিগ্ন হয়ে এমন প্রস্তাব দিয়েছিলেন‌।

প্রশ্ন অনেক: দ্বিতীয় পর্ব