শিলিগুড়িঃ  ক্রমশ বাড়ছে সংক্রমণ। রাজ্যের একাধিক জেলাতে হু হু করে সংক্রমণ বাড়ছে। এই পরিস্থিতিতে গোটা বাংলাজুড়ে দুদিন করে কমপ্লিট লকডাউনের ঘোষণা করা হয়েছে। এছাড়া জেলা প্রশাসনের তরফেও এলাকাভিত্তিক লকডাউনের কথা বলা হয়েছে। সেই মতো একাধিক জায়গাতে চলছে লকডাউন।

যদিও শর্তসাপেক্ষে একাধিক ছাড়ের কথা বলা হয়েছে। অন্যদিকে, পাহাড়ে আরও ৭ দিন বাড়ানো হল লকডাউনের মেয়াদ। কাল রবিবার থেকে ৮ তারিখ পর্যন্ত দার্জিলিং, কালিম্পঙে লকডাউনের ঘোষণা করা হয়েছে। এছাড়া লকডাউনের আওতায় কার্শিয়ং, মিরিকও রয়েছে। আজ শনিবার এমনটাই জানিয়ে দেওয়া হয়েছে জিটিএ-র তরফ থেকে। পাহাড়ে আজ শনিবার লকডাউন শেষ হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু পাহাড়ে নতুন করে করোনা সংক্রমণের প্রেক্ষিতে বাড়ল লকডাউনের মেয়াদ।

প্রসঙ্গত, বাংলা জুড়ে ফের সম্পূর্ন লকডাউনের পথে হেঁটেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। অগাস্ট মাস জুড়ে ২ তারিখ বাদে প্রত্যেক রবিবারই সম্পূর্ণ লকডাউন থাকবে। এছাড়া প্রতি সপ্তাহে আরেকটি করে দিনও কঠোর লকডাউন পালন হবে।

উল্লেখ্য, ক্রমবর্ধমান করোনা সংক্রমণের আবহে দিন কয়েক আগেই মমতা জানিয়েছিলেন এবার থেকে প্রতি সপ্তাহে দু’দিন করে লকডাউন থাকবে। সেই অনুযায়ী গত সপ্তাহে বৃহস্পতিবার এবং শনিবার সম্পূর্ণ লকডাউন পালন হয়েছে। চলতি সপ্তাহে বুধবার (আগামীকাল) লকডাউন হবে সে কথা আগেই দিয়েছে রাজ্য প্রশাসন।

মঙ্গলবার আগামী এক মাসের জন্য লকডাউনের দিনগুলি ঘোষণা করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এরপর মাসের শেষ সপ্তাহের ৩১ তারিখে রাজ্যে সম্পূর্ণ লকডাউন থাকবে। মঙ্গলবার মুখ্যমন্ত্রী এও জানান যে আগামি ৩১ অগাস্ট পর্যন্ত বন্ধ থাকবে সমস্ত স্কুল-কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়গুলি। ৫ সেপ্টেম্বরের পর পরিস্থিতি পর্যালোচনা করে বাকি সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

স্বামীর সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে বস্ত্র ব্যবসাকে অন্যমাত্রা দিয়েছেন।'প্রশ্ন অনেকে'-এ মুখোমুখি দশভূজা স্বর্ণালী কাঞ্জিলাল I