প্রতীতি ঘোষ, বারাসত: ক্রমেই করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়েই চলেছে উত্তর ২৪ পরগনার জেলায়। যার ফলে উত্তর ২৪ পরগনার বিভিন্ন এলাকাতে নতুন করে কঠোর লক ডাউন জারি করছে সরকার। রাজ্য স্বাস্থ্য দফতরের বর্তমান রিপোর্ট অনুযায়ী এখনও পর্যন্ত শুধু উত্তর ২৪ পরগনা জেলায়া করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাড়িয়েছে প্রায় ৬ হাজার। ফলে এই করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ায় যথেষ্ট উদ্বিগ্ন জেলা প্রশাসন।

উত্তর ২৪ পরগনার জেলা সদর বারাসাতে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা হু হু করে বৃদ্ধি পাওয়ায় সমস্ত বারাসাত শহর জুড়ে কঠোর লক ডাউন জারি করা হয়েছে সরকারের পক্ষ থেকে। উত্তর ২৪ পরগনা জেলা সদর বারাসাত পুরসভা এলাকায় লক ডাউন কার্যকর করতে সক্রিয় ভূমিকা পালন করছে প্রশাসন।

একেবারে রাস্তায় নেমে করোনার বিরুদ্ধে লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন পুলিশ প্রশাসনের আধিকারিকরা। মানুষকে বোঝাচ্ছেন। জানা যাচ্ছে, বারাসত শহরে ৯ তারিখ থেকেই চলছে মাইকিং। বারাসাত শহরের করোনা প্রভাবিত অঞ্চলগুলিকে কন্টেনমেন্ট জোন হিসেবে ঘোষণা করে সেই অঞ্চলগুলি বাঁশ দিয়ে ব্যারিকেড করে ঘিরে দিয়েছে প্রশাসন।

কিন্তু তাতেও ফল না মেলায় আগামী সাতদিন বারাসাত পুরসভা এলাকায় আংশিক ও সময়ভিত্তিক লক ডাউনের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে। দুপুর একটার পরে বারাসাত পুরসভা অঞ্চলে জরুরি পরিষেবা ব্যতীত দোকানপাট বাজার ঘাট বন্ধ থাকবে। এমনটাই জানানো হয়েছে।

মঙ্গলবার বারাসাত পুরসভায় সর্বদলীয় বৈঠকে লকডাউনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। বোর্ড অফ অ্যাডমিনস্ট্রেটরস এর আগেই নিজেদের মধ্যে আলোচনা করে কোভিডের মোকাবিলা করতে জরুরি পদক্ষেপ নেওয়ার কিছু সিদ্ধান্ত নেয়।

সর্বদলীয় বৈঠকে সেই সিদ্ধান্তে সিলমোহর পড়ে। সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে যে, সকাল সাতটা থেকে একটা পর্যন্ত খোলা থাকুক বাজার। বন্ধ থাকবে পান বিড়ি চায়ের দোকান। সেই সঙ্গে বারাসাতে চালু করা হবে কোভিড হাসপাতাল। পাশাপাশি বারাসাতের মানুষের কথা ভেবে তৈরি করা হবে সেফ হোম।

বারাসাত পুরসভা অঞ্চলে কোভিড পসিটিভদের চিকিৎসার জন্য নার্সিংহোম থাকার উপযোগিতা বিচার করে সে বিষয়ে সর্বদল সার্বিক ভাবে সহমতে এসেছে বলে জানান বারাসাত পুরসভার বোর্ড অফ অ্যাডমিনস্ট্রেটরের কার্যনির্বাহী প্রশাসক অশনি মুখোপাধ্যায়।

বাড়তে থাকা করোনা সংক্রমণ প্রতিহত করতেই সমস্ত রাজনৈতিক দলগুলিকে ডেকে বারাসাত পুরসভায় সর্বদলীয় বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে যে বারাসাত পৌরসভা অঞ্চল জুড়ে আগামী বৃহস্পতিবার থেকে আগামী সাতদিন আংশিক ও সময়ভিত্তিক লকডাউনের পাশাপাশি জনসচেতনতা বাড়ানোর উদ্যোগ নেওয়া হবে। উল্লেখ্য বোর্ড অফ অ্যাডমিনস্ট্রেটরের প্রশাসক সুনীল মুখার্জী ও অপর এক কাউন্সিলর হোম কোয়াররেন্টাইনে রয়েছেন।

পপ্রশ্ন অনেক: চতুর্থ পর্ব

বর্ণ বৈষম্য নিয়ে যে প্রশ্ন, তার সমাধান কী শুধুই মাঝে মাঝে কিছু প্রতিবাদ