ফাইল ছবি

কলকাতা: সোমবার থেকেই রাজ্যে চারদিনের জন্য লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে। কলকাতা সহ পশ্চিমবঙ্গে জুড়ে লকডাউনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। লকডাউনের সময় কিছু রুরি পরিষেবা ছাড়া সব অফিস, দোকানপাট বন্ধ থাকবে বলে জানিয়েছে রাজ্য স্বাস্থ্য দফতর। এবিষয়ে একটি নির্দেশিকায়ও জারি করা হয়েছে। সেখানে বলা হয়েছে-

লক ডাউনের মধ্যে ১৮৮ ধারা প্রয়োগ করেছে সরকার। তাছাড়া রাজ্যে জারি রয়েছে মহামারী আইন। এই সময় খুব খুব প্রয়োজন ছাড়া কেউ বাড়ি থেকে বেরোবেন না। পুলিশ কড়া ব্যবস্থা নিতে পারে।

বিদেশ থেকে যে সকল ব্যক্তিরা ফিরেছেন তাঁদের অতি অবশ্যই কোয়ারানটিনে থাকতে নির্দেশ দিয়েছে স্বাস্থ্য দফতর। এর অন্যথা হলে কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হতে পারে।

রাজ্যে সব দোকান, বাণিজ্য প্রতিষ্ঠান, অফিস, কারখানা, কর্মশালা, গোডাউন বন্ধ থাকবে বলে জানানো হয়েছে।

অন্যদিকে বেশ কিছু ক্ষেত্রকে ছাড় দেওয়া হয়েছে। স্বাস্থ্য পরিষেবা,সিভিল ডিফেন্স, জরুরি পরিষেবা, টেলিকম, সশস্ত্র বাহিনী ও আধা সামরিক বাহিনী, আদালত ও সংশোধনাগারের পরিষেবা সহ ব্যাঙ্ক ও এটিএম পরিষেবা স্বাভাবিক থাকবে বলে জানানো হয়েছে।

নিত্যপ্রয়োজনীয় সামগ্রী যেমন চাল-ডাল, সবজি, মাছ-মাংস, ওষুধ ইত্যাদির দোকান খোলা থাকবে বলে জানানো হয়েছে। পাউরুটি ও দুধও মিলবে।

লাল-নীল-গেরুয়া...! 'রঙ' ছাড়া সংবাদ খুঁজে পাওয়া কঠিন। কোন খবরটা 'খাচ্ছে'? সেটাই কি শেষ কথা? নাকি আসল সত্যিটার নাম 'সংবাদ'! 'ব্রেকিং' আর প্রাইম টাইমের পিছনে দৌড়তে গিয়ে দেওয়ালে পিঠ ঠেকেছে সত্যিকারের সাংবাদিকতার। অর্থ আর চোখ রাঙানিতে হাত বাঁধা সাংবাদিকদের। কিন্তু, গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভে 'রঙ' লাগানোয় বিশ্বাসী নই আমরা। আর মৃত্যুশয্যা থেকে ফিরিয়ে আনতে পারেন আপনারাই। সোশ্যালের ওয়াল জুড়ে বিনামূল্যে পাওয়া খবরে 'ফেক' তকমা জুড়ে যাচ্ছে না তো? আসলে পৃথিবীতে কোনও কিছুই 'ফ্রি' নয়। তাই, আপনার দেওয়া একটি টাকাও অক্সিজেন জোগাতে পারে। স্বতন্ত্র সাংবাদিকতার স্বার্থে আপনার স্বল্প অনুদানও মূল্যবান। পাশে থাকুন।.