হাওড়া: দাঁতালের তাণ্ডবে আতঙ্কে হাওড়া৷ সূত্রের খবর রবিবার পশ্চিম মেদিনীপুরের আধারমনিবীট থেকে দুটি দাতাল হাতি দলছুট হয়ে রাজ্য সড়ক পেরিয়ে ঘাটালে ঢুকে যায়। সেই হাতিদুটি মঙ্গলবার সাত সকালে জগৎবল্লভ পুরের মানিকপিড়ে ঢুকে পড়ে৷

ঘটনাস্থলে বন বিভাগের কর্মী ও হুলা পার্টি পৌঁছয়। সরিয়ে দেওয়ার চেষ্টা চালানো হয় হাতিদুটিকে৷ গতকাল এই হাতি দুটিকেই দেখা গিয়েছিল জয়পুর থানার উত্তর ভাটরাতে। সরিয়ে দেওয়া হয়েছিল পাশের জঙ্গলে। অনুমান রাতেই হাতি দুটি আবারও নদী পেরিয়ে ঢুকে পড়ে জয়পুরে। গ্রামীণ হাওড়ায় হাতির খুব একটা দেখা পাওয়া যায় না। সম্ভবত মেদিনীপুরের জঙ্গল থেকে পথ হারিয়ে কিংবা দলছুট হয়ে দুটি হাতি ঢুকে পড়ে গ্রামীণ হাওড়ায়।

মেদিনীপুরে সোমবার ঘোরাঘুরির পরে নদীতে জল কম থাকার সুযোগে রূপনারায়ন পেরিয়ে যায় তারা৷ পরে পানশিউলির দিক থেকে মুন্ডেশ্বরী পেরিয়ে উত্তর ভাটোরার পশ্চিম পাড়ায় প্রবেশ করে। এদিকে গ্রামে হাতি ঢোকার খবরে গ্রামবাসীদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়ায়।

মাধ্যমিক পরীক্ষার আগে গ্রামে হাতি ঢোকায় আতঙ্কগ্রস্থ হয়ে পড়ে মাধ্যমাক পরীক্ষাথীরা। অধিকাংশ পরীক্ষার্থীর মতে প্রথমবার গ্রামে হাতি ঢোকায় আতঙ্কে পড়াশুনায় মন বসাতে পারছিনা এমনকি রাতের মধ্যে গ্রাম থেকে হাতি দুটিকে তাড়াতে না পারলে মঙ্গলবার পরীক্ষা দিতে যাওয়া নিয়েও দুশ্চিন্তায় তারা।

হাতির সামনে পড়ে যাওয়ায় গোবিন্দ ধাওয়া (৫৫) নামে এক গ্রামবাসী আহত হয়। যদিও হাতি দুটি কোন ক্ষতি না করে গ্রামের মধ্যে একটি বাঁশ বাগানের মধ্যে আশ্রয় নেয়।

গ্রামে হাতি ঢোকার খবর পাওয়ার পরেই বিশাল পুলিশ বাহিনী, ব্লক প্রশাসন ছাড়াও বন দফতরের কর্মীরা গ্রামে পৌছে হাতির কাছে না যাওয়ার জন্য গ্রামবাসীদের অনুরোধ করেন। ব্লক প্রশাসন সূত্রে খবর হাতি দুটিকে তাড়ানোর জন্য বন দফতরের খড়গপুর ডিভিশন থেকে হাতি বিশেষজ্ঞ এবং হল্লা পাটিদের খবর দেওয়া হয়৷